Main Menu
শিরোনাম
বিশ্বনাথে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতৃবৃন্দের মধ্যে ফরম বিতরন         বিশ্বনাথে সাইফুলের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল         ছাতকে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল         ছাতকে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃদ্ধ গ্রেপ্তার         বিশ্বনাথে দুই হত্যা মামলার প্রধান আসামী সাইফুল গ্রেপ্তার         কোম্পানীগঞ্জে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু         গোলাপগঞ্জে গৃহবধূকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার         শান্তিগঞ্জে পানিতে ডুবে দুই চাচাতো বোনের মৃত্যু         কামাল উদ্দিন রাসেল’র উপর মামলা প্রত্যাহারের দাবি         বিশ্বনাথে ‘ব্লাকমেইল’ করে গৃহবধুকে ধর্ষণ, ধর্ষক আটক         দক্ষিণ সুরমা কলেজে শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা         গোলাপগঞ্জে ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা সেবা অনুষ্ঠিত        

অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক: পাঁচবারের দেখায় প্রথম জয়। ঘরের মাঠে টাইগারদের আমন্ত্রণে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলতে এসে সাকিব-নাসুমদের স্পিনেই পুড়লো অজিরা। মার্শ-ওয়েডদের বিপক্ষে ২৩ রানে জিতে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টিতে জয়ের স্বাদ নিলো বাংলাদেশ।

ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ পায় মাহমুদউল্লাহ বাহিনী। তবে খুব ভালো শুরু পায় নি বাংলাদেশ। শুরু থেকেই অজি পেসার স্টার্ক-হ্যাজলউডের তোপের মুখে পরে টাইগাররা। কার্যকরী ছিলো অ্যাডাম জাম্পা-অ্যাশটন অ্যাগারের স্পিনও।

স্টার্ক-হ্যাজলউডের গতির সাথে ইয়র্কার, সুইংয়ে যাওয়া-আসার মধ্যে ছিলো স্বাগতিকরা। ম্যাচের প্রথম ওভারে স্টার্কের দ্বিতীয় বলেই ফ্লিক করে উড়িয়ে মেরেছিলেন মোহাম্মদ নাইম। নাইমের সেই ছয়ের মারের পরে চেপে ধরেছিলেন জশ হ্যাজলউড। নিজের করা প্রথম ওভারে ৩ রান দেওয়ার পরে দ্বিতীয় ওভারেই তুলে নেন টাইগার ওপেনার সৌম্য সরকারকে (৯ বলে ২ রান)।

পরে ভয়ডরহীন শটে শুরু করা নাইম শেখ আশা জাগিয়েও বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হন। অ্যাডাম জাম্পার বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে ২ ছয়ে আর ১ বাউন্ডারিতে গুরুপ্তপূর্ণ ২৯ বলে ৩০ রান করেন নাইম। পরে দুর্দান্ত ক্যাচ হয়ে ফিরেন টাইগার অধিনায়কও। দুর্দান্ত ক্যাচ বনে যাওয়ার আগে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ২০ বলে ২০ রান করেন। ইনিংসে ছয়ের মার ছিলো একটা।

পরে বেশি সময় থাকতে পারেন নি নুরুল হাসান সোহানও। ৪ বলে মাত্র ৩ রান করে ফিরেন এই উইকেট কিপার ব্যাটার। শেষে ৩৩ বলে ৩৬ রান করা সাকিবকে বোল্ড করে ফিরান জশ হ্যাজলউড। পরে স্টার্কের ইয়র্কার ঠেকাতে পারেন নি তরুণ শামীম হোসেন। ফিরেছেন ৩ বলে ৪ রান করে। শেষের দিকে আফিফ হোসেনের ১৭ বলে ২৩ আর মাহেদি হাসানের ৬ বলে ৭ রানে মাঝারি সংগ্রহ পায় টাইগাররা।

নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩১ রানের ছোট পূঁজিতেই দারুণ লড়েছে টাইগাররা। স্পিন দিয়ে শুরু করা ইনিংসে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন মাহেদি-নাসুম-সাকিব। তিন ওভারেই তিন উইকেট তুলে নিয়ে বেশ চাপে ফেলে সফরকারীদের। সেখান থেকে মিচেল মার্শকে নিয়ে দারুণ এক জুঁটি গড়ে চাপ কাটাতে চাইছিলো অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েড। পরে তাকে ভুল শট খেলতে বাধ্য করে উইকেট তুলে নেন নাসুম আহমেদ।

শেষের পুরো জাদুটা শুধু নাসুম আহমেদ দেখাতে পারলো না। তাতে ভাগ বসান মুস্তাফিজুর ও শরিফুল ইসলাম। তবে অজি অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েডকে হিট উইকেট বানিয়ে তুলে নেন নিজের তৃতীয় উইকেট। পরে বাংলাদেশের জয়ের পথে অন্যতম বাধা হয়ে থাকা মিচেল মার্শকে ফেরান নাসুম।

0Shares





Related News

Comments are Closed