Main Menu

শাবিতে ১০ দিনব্যাপি বইমেলা, স্টলে থাকছে ২০ প্রকাশনী

শাবি প্রতিনিধি: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামি ৬ নভেম্বর রোববার থেকে ১০ দিনব্যাপি বইমেলার আয়োজন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘কিন’ এই বইমেলার আয়োজন করেছে বলে সংগঠনটি বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তার ছেলের চিকিৎসার অর্থ সংগ্রহে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটির এই অভিনব উদ্যোগ বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এ উদ্যোগকে প্রশংসনীয় বলেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এই কার্যক্রমকে সফল করার জন্য কর্তৃপক্ষ সহযোগিতা করছেন বলে জানা গেছে।

আগামী ৬ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত এ মেলা চলবে। প্রতিদিন সকাল নয়টা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত স্টল থেকে পাঠকরা বই কিনতে পারবেন। তবে শুক্রবার আর শনিবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বইমেলার স্টল বসবে।

বিজ্ঞপ্তিতে কিন জানায়, এবারের বই উৎসব ভাষাসৈনিক ও শিক্ষাবিদ প্রতিভা মুৎসুদ্দিকে উৎসর্গ করা হয়েছে। মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা আব্দুল হামিদের এক বছরের ছেলে আহমেদ হুসাইন আল মোস্তফা ‘বাইল্যাটারাল প্রোফাউন্ড হিয়ারিং লস’ রোগে আক্রান্ত।

দুই কানের শ্রবণশক্তি জিরো হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাইয়ের সিএমসি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন ওই কর্মকর্তার ছেলে।

“তার চিকিৎসায় সহযোগিতার লক্ষ্যে এ বইমেলার আয়োজন করা হয়। বইমেলা থেকে প্রাপ্ত অর্থ তার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে।”

বিগত বছরের ন্যায় এবারও বইমেলার মাধ্যমে এসব মানুষের পাশে দাঁড়াতে কিনের এ উদ্যোগে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

“এবারের বইমেলায় দেশের জনপ্রিয় ২০টি বই প্রকাশনীর স্টল থাকছে। এর মধ্যে অন্যপ্রকাশ, আগামী পাবলিকেশন, অন্বেষা পাবলিকেশন, বাতিঘর ও অনলাইন প্রকাশনী রকমারি ডটকমও রয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কিনের এ উদ্যোগকে ‘অত্যন্ত প্রশংসনীয়’ উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক আমিনা পারভীন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, কোনো একটি চ্যারিটিকে (সহযোগিতামূলক কার্যক্রম) উদ্দেশ্য রেখে কিন প্রতিবছরই বইমেলার আয়োজন করে থাকে। গত আড়াই বছর ধরে মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে তাদের পক্ষে এটা করা সম্ভব হয়নি।

বইমেলা সম্পর্কে অবগত রয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় এখন একটি স্থিতিশীল অবস্থায় এসেছে তাই এখন সবকিছুই পূর্বের মত আয়োজন করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বইমেলার জন্য অনুমোদন দিয়েছে।

এছাড়া এরকম কার্যক্রমে প্রশাসন বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে যাবে বলে জানান তিনি।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed