Main Menu
শিরোনাম
সিলেটের ৬ উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিতরণ         তাহিরপুর সীমান্তে ভারতীয় কয়লার চালান জব্দ         দিরাইয়ে জুমার নামাজে এসে মারা গেলেন মুসুল্লি         সিলেটে ডায়রিয়ার প্রকোপ, ৭ দিনে আক্রান্ত সাড়ে ৫শ’         কুলাউড়ায় স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ, আটক ২         পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের ত্রাণ বিতরণ         গোয়াইনঘাটে বন্যার্তদের মাঝে বিএনপির ত্রাণ বিতরণ         জিয়ার ৪১তম শাহাদাতবার্ষিকীতে সিলেটে বিএনপির ২দিনের কর্মসূচী         হবিগঞ্জে মন্ত্রীপরিযদ সচিব ও সাবেক তথ্য সচিব         দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা         সিলেটে ভূমি নিয়ে বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ২০         সিলেটে বন্যায় ক্ষতি ১১০০ কোটি টাকা, বেশি ক্ষতি সড়ক, কৃষি ও মাছের        

বীরশ্রী ইউপিতে নজিরবিহীন ভোট জালিয়াতি, পুনরায় ভোট দাবি

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: পঞ্চমধাপে গত ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার ২নং বীরশ্রী ইউনিয়নে নজিরবিহীন ভোট জালিয়াতি ও ভোট কারচুপির অভিযোগ উঠেছে। ওই নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় নির্বাচন না দিলে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ওই ইউনিয়নের পরাজিত ১০জন প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) নগরের পূর্ব জিন্দাবাজারস্থ সিলেট জেলা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ২নং বীরশ্রী ইউনিয়নের ১০ জন সদস্য পদপ্রার্থীর উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন ঘোষণা দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বীরশ্রী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী মো. আব্দুল আহাদ বলেন, সারাদেশের ন্যায় পঞ্চমধাপে জকিগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন-এর নির্বাচন বিগত ৫জানুয়ারি ভোটগ্রহণ হয়। জকিগঞ্জের ইতিহাসে কলঙ্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ এই নির্বাচনে বীরশ্রী ইউনিয়নের ৯টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ৩টি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-এর প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী ছিলাম। ২নং বীরশ্রী ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. রাজীব চক্রবর্তী ও সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রসমূহের দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং অফিসারদের যোগসাজশে নজিরবিহীন ভোট জালিয়াতি হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, নির্বাচনে ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সোনাপুর সুপ্রাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক মো. রোকন উদ্দিন ভোটের দিন সকালে আমাদের জানান, এ কেন্দ্রে ২০০টি ব্যালেট পেপার না আসায় ব্যালেট পেপার ফটোকপি করে ভোট গ্রহণ করতে হবে। আমরা প্রিসাইডিং অফিসারের এমন বক্তব্যের তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে নানা সমস্যা কথা তুলে ধরে ভোটগ্রহণ শুরু করেন।

মো. আব্দুল আহাদ আরও বলেন, শহীদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে সাধারণ সদস্যের ব্যালেট পেপার ভিন্ন রংয়ের দেখে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক মো. মনোয়ার হোসেনকে জানালে তিনি ছাপার কারণে এমনটি হয়েছে বলে জানান। এছাড়া গুরুসদয় উচ্চবিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার অধ্যক্ষ মো. মুস্তাক আহমদের নেতৃত্বে ভোট গ্রহণের দায়িত্বে থাকা সহকারি প্রিসাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার ভোট গণনার সময় গোপনে ব্যাগে ও পকেটে করে শতাধিক সিলমারা ব্যালেট পেপার মিশিয়ে দেন।

তিনি আরও জানান, একইভাবে কোনাগ্রাম বারজানি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার সহকারি অধ্যাপক ড. মো. হাবিবুল্লাহ বাহার, শেরুলবাগ উচ্চবিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার ডা. মো. ওয়াজেদ আলী, পশ্চিম জামডহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক মোহাম্মদ হারিছ উদ্দিন, পূর্ব জামডহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক মো. ফয়জুল হক, বড়পাথর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক আজিজুল ইসলাম, রঘুরাশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার প্রভাষক নজরুল ইসলাম জকিগঞ্জ উপজেলার ২নং বীরশ্রী ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং অফিসার ডা. রাজীব চক্রবর্তীর নির্দেশে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নিজেদের কন্ট্রাককৃত চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের প্রতীকে সিল মেরে গোপনে ২০০টি ব্যালেট পেপার ঢুকিয়ে দেন।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, কোন কোন প্রার্থীকে আগের রাতে সিল মেরে ব্যালেট পেপার দিয়ে দেয়া হয়েছে। ভোটের দিন প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থক নিজেদের ভোট দিতে গিয়ে গোপনে বাড়তি ৪/৫টি করে ভোট বক্সে ঢুকিয়ে দিয়েছেন। এভাবেই জকিগঞ্জ উপজেলার ২নং বীরশ্রী ইউনিয়ন-এর প্রতিটি ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্রে ভোট জালিয়াতি ও ভোট কারচুপির হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ইতিমধ্যে উপজেলার ১নং বারহাল ও ৩নং কাজলসার ইউনিয়ন-এর দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আরিফুল হক ও ৫নং জকিগঞ্জ, ৬নং সুলতানপুর ও ৭নং বারঠাকুরী ইউনিয়ন-এর দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার শাদমান সাকিব সিল মারা ৪ শতাধিক ও সিল ছাড়া ৪ শতাধিক ব্যালট পেপারসহ গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে রয়েছেন।

লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়, বিগত ৫ জানুয়ারীর ইউনিয়ন নির্বাচনের দিন উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার, ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসারসহ স্থানীয় প্রশাসনের ভূমিকা ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। এবারের ইউনিয়ন নির্বাচনে জকিগঞ্জের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের ভোট গ্রহণের জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছিল, তাদের অনেককেই পরবর্তীতে ভোট গ্রহণের দায়িত্ব না দিয়ে নিজেদের আনুগত্যদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ভোট গ্রহণের দায়িত্বে থাকা অনেকেই কোন প্রশিক্ষণ নেননি। অথচ তারাই অদৃশ্য কারণে ভোট গ্রহণের দায়িত্ব পেয়ে যান।

0Shares





Related News

Comments are Closed

%d bloggers like this: