Main Menu

বিশ্বনাথে দুকূল হারালেন বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন!

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে দুকূল হারালেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও সদ্য বহিস্কৃত বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন।

২রা নভেম্বর অনুষ্ঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভা নির্বাচনে তিনি ‘হ্যাঙ্গার’ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৩ হাজার ১৭ ভোট পেয়ে ৭ মেয়র প্রার্থীর মধ্যে ৪র্থ হন।

জালাল উদ্দিন ছিলেন বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদের দুই বারের সাবেক চেয়ারম্যান। পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য জালাল উদ্দিন জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে শারীরিক অসুস্ততার কারণ দেখিয়ে দল থেকে অব্যাহতি চেয়ে অব্যাহতিপত্র জমা দিয়ে নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

প্রতীক বরাদ্ধের পর উপজেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক গৌছ খান, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বশির আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহমান খালেদসহ উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপির অনেক শীর্ষ নেতাকর্মীরা তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার কাজ করেন। উঠান বৈঠক, গণসংযোগ আর প্রচারণা করে নির্বাচনি মাঠ অনেকটা গরমও করে তুলেন।

কিন্তু হঠাৎ করে নির্বাচনের দু’দিন পূর্বে জালাল উদ্দিনকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়। আর গত ৩০ অক্টোবর ওই বহিস্কার আদেশে স্বাক্ষর করেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। বহিস্কার আদেশ পাওয়ার পরও তিনি নির্বাচন থেকে পিছপা হননি।

অবশেষে ওই নির্বাচনে জালাল উদ্দিন ‘হ্যাঙ্গার’ প্রতীক নিয়ে ৩ হাজার ১৭টি ভোট পেয়ে বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হন। আর মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৭ প্রার্থীর মধ্যে হন ৪র্থ। জালাল উদ্দিন নির্বাচনে পরাজিত ও দলের পদ হারিয়ে এখন দিশেহারা হয়ে গেছেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed