Main Menu

শিগগিরই ভিনগ্রহে পাড়ি জমাবে মানুষ, দাবি নাসার বিজ্ঞানীদের!

প্রযুক্তি ডেস্ক: প্রকৃতির বৈরী পরিবেশ আর মানুষের ক্রমবর্ধমান পরিবেশ দূষণে ভবিষতে মানুষের অস্তিত্ব নিশ্চিহ্ন হবে। আর এ আশঙ্কায় পৃথিবীর মতো আরেকটি নিরাপদ বাসস্থান খুঁজে পেতে এতোদিন মরিয়া ছিল নাসার বিজ্ঞানীরা।

নাসা এ বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত গবেষণা করছে গবেষক জিয়াং ও তার দল। সম্প্রতি বিজ্ঞানী ও গবেষক জিয়াং বলেছেন, আগামী ২০০ বছরের মধ্যে মানুষ ভিনগ্রহে বসবাস করা শুরু করতে পারবে। মানুষের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে এটি হবে মানুষের জন্য বড় বিষয়।

অন্য গ্রহে বসবাস করার বিষয়ে প্রায় ৬০ বছর আগে সোভিয়েত জ্যোতির্বিদ কার্দাশেভ ব্যাখ্যা করেছিলেন কার্দাশেভ স্কেল। কার্দাশেভ স্কেল হলো বুদ্ধিমান প্রজাতির প্রযুক্তিগত সম্ভাবনা অনুমান করার জন্য একটি পরিমাপ প্রকল্প। এ ধারণাকে পরবর্তীতে সংশোধন করেছিলেন কার্ল সেগান।

বিজ্ঞানী জিয়াং মনে করেন, আত্মার ধ্বংস বাঁচাতে এটি আমাদের অবশ্যই পারতে হবে। ধারণা করা হয়, মহাকাশের বিভিন্ন গ্রহের বুদ্ধিমান প্রাণীরা নিজেদের সৌরজগতের একটি গ্রহে নয়, বরং দুই বা তিনটি গ্রহে বসবাস করার সামর্থ্য রাখতে পারে। এ সম্পর্কিত তাদের গবেষণার সাফল্য আশানুরূপ হওয়ায় নাসা বিজ্ঞানীরা দাবি করছেন, ২৩৭১ সালের মধ্যে মানুষ ভিনগ্রহে বসবাস করবে।

মানুষ হিসেবে এ প্রজেক্ট সাফল্য পেলে আগামী প্রায় ২০০ বছরে মানুষও অন্য গ্রহের বুদ্ধিমান প্রাণীদের সমকক্ষ হতে পারবে। কীভাবে ভিনগ্রহে বসবাস করা সম্ভব হবে এমন প্রশ্নে জিয়াং বলেন, বর্তমান প্রযুক্তির উন্নতি ও নিউক্লিয়ার এনার্জির ক্ষমতা বৃদ্ধি, জ্বালানির উন্নয়নের মাধ্যমে আরও দ্রুতগতির যান উদ্ভাবনে এমনটা সম্ভব হবে। যদি তাই হয়, তবে ভবিষ্যতে মানুষ ভিনগ্রহের সঙ্গেও যোগাযোগ ঘটাতে পারবে বলে মনে করছেন নাসা গবেষকরা।

সূত্র: আজতাক, লাইভ সাইন্স।

0Shares





Related News

Comments are Closed

%d bloggers like this: