Main Menu
শিরোনাম
সিলেটে করোনায় আরো ১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭         সিলেটে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, বৃদ্ধ খুন         নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে মিছিল সমাবেশ         জৈন্তাপুরে হিন্দু-বৈদ্য খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশ         বিশ্বনাথে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতৃবৃন্দের মধ্যে ফরম বিতরন         বিশ্বনাথে সাইফুলের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল         ছাতকে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল         ছাতকে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃদ্ধ গ্রেপ্তার         বিশ্বনাথে দুই হত্যা মামলার প্রধান আসামী সাইফুল গ্রেপ্তার         কোম্পানীগঞ্জে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু         গোলাপগঞ্জে গৃহবধূকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার         শান্তিগঞ্জে পানিতে ডুবে দুই চাচাতো বোনের মৃত্যু        

পর্যটক নিয়ে মহাকাশে যাচ্ছে স্পেস এক্স

প্রযুক্তি ডেস্ক: আরেকজন কোটিপতি উদ্যোক্তা মহাকাশে যেতে প্রস্তুত। পর্যটক হিসেবে তিনি যাবেন মহাকাশে স্পেস এক্সের রকেট ক্যাপসুল দিয়ে। অ্যাস্ট্রো ট্যুরিস্ট টিমের সঙ্গে পৃথিবীর কক্ষপথে এই ফ্লাইটটি হবে বিশ্বের প্রথম সিভিলিয়ান ফ্লাইট। ফ্লোরিডার কেপ কার্নিভাল থেকে আটলান্টিক মহাসাগরের ওপর দিয়ে উড়ে যাবে এ রকেট।

এই বিলিওনিয়ার ৩৮ বছর বয়সী মার্কিন নাগরিক জ্যারেড ইসাকম্যান। ইকমার্স ফার্ম শিফটফোর পেয়মেন্টের প্রধান নির্বাহী এই টেক মুঘল তিন দিনের এই ট্রিপে নেতৃত্ব দেবেন মোট তিনটি স্পেস ফ্লাইটের। ইসাকম্যানের সঙ্গে স্পেস ক্রু ড্রাগন ক্যাপসুলে পৃথিবীর কক্ষপথে যাবেন আরও ৩ জন পর্যটক।

নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে বিলিওনিয়ার ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্সের ফ্যালকন নাইন রকেটটি ছেড়ে যাবে। ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে ক্যাপসুলের জানালা। পরে আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করে জানালা বন্ধ করে দেওয়া হবে। এই মিশন সফল হলে বাণিজ্যিক স্পেস ট্যুরিজমের পথে এগিয়ে যাবে মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো।

অনেক ধন্যাঢ্য ব্যক্তি স্পেস এজেন্সিগুলোর কাছ থেকে টিকিট কিনতে আগ্রহ দেখাচ্ছে। অনেকে অগ্রিম টিকিটও কিনছেন, যেন কিছু সময়ের জন্য সুপারসনিক ফ্লাইটে করে মহাশূন্যে ভাসতে পারেন, নিজেকে ওজনহীন মনে করতে পারেন আর মহাকাশ দেখতে পারেন।

তবে রকেটে করে মহাকাশে ভ্রমণ বরাবরই বিপজ্জনক হওয়ায় এ নিয়ে সমালোচনা আর গবেষণারও শেষ নেই। এ জন্য মহাশূন্যে ভাসতে হলে অবশ্যই ধনী হতে হবে, এর পাশাপাশি হতে হবে সাহসী। এই ফ্লাইট কক্ষপথে পৌঁছানোর পর ক্রু সঙ্গে থাকা পর্যটকদের শারীরিক বিভিন্ন পরীক্ষা করে দেখবেন। পৃথিবীতে মানুষের শারীরিক অবস্থা কেমন থাকে আর মহাশূন্যে স্পেসফ্লাইটে কেমন থাকে, তা নিয়ে গবেষণা করবেন।

স্পেসএক্সের এই ফ্লাইট মহাকাশে পৃথিবীর কক্ষপথে যাবে সব সাধারণ ক্রুদের নিয়ে। এই মহাকাশযান ৯০ মিনিটে পৃথিবীকে একবার করে প্রদক্ষিণ করবে। গতি থাকবে ঘণ্টায় ১৭ হাজার মাইল। এই রকেট উঠবে ৫৭৫ কিলোমিটার বা ৩৬০ মাইল ওপরে। এই উচ্চতা আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন বা হাবল স্পেস টেলিস্কোপের কক্ষপথ থেকেও অনেক ওপরে।

ইন্সপায়রেশন ক্রু ফ্লাইটে দুজন পাইলটই প্রশিক্ষিত। একজন ইসাকম্যান আরেকজন বিজ্ঞানী সিয়ন প্রোক্টোর। মেডিকেল অফিসার হিসেবে থাকবেন হ্যায়লে আরসেনাক্স। মিশন স্পেশালিস্ট হিসেবে থাকবেন ক্রিস সেমব্রোস্কি, যিনি মার্কিন এয়ারফোর্সে ডাটা ইঞ্জিনিয়ার।

এই স্পেস ফ্লাইটের ক্রু সদস্যরা বলছেন, ১০০ জনে একজন পাওয়া যায় এমন সাহসী নভোচারী। ধনাঢ্য ব্যক্তিরা এখন গাড়ি বাড়ি কেনার চেয়ে আড়াই লাখ ডলার দিয়ে মহাকাশ ভ্রমণের কথাই বেশি ভাবেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed