Main Menu
শিরোনাম
কানাইঘাটে গৃবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার, স্বামী গ্রেপ্তার         কমলগঞ্জ উপজেলা মুক্ত দিবস আজ         বিশ্বনাথে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, নতুন আক্রান্ত ১১         সিলেটে আরো ২৭ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ১         মহানবী (সা.) কে নিয়ে কটুক্তি, বিশ্বনাথে যুবক গ্রেপ্তার         সিলেটে আরও ৪৬ জনের করোনা শনাক্ত         সিলেটে আরো ৩০ জনের করোনা শনাক্ত, সুস্থ ৩৩         সিলেটে র‌্যাবের অভিযানে মদ-ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ৮         সিলেটে স্বাস্থ্যকর্মীদের কর্মবিরতি পালন         কমলগঞ্জে স্বাস্থ্যকর্মীদের কর্মবিরতি অব্যাহত         কমলগঞ্জে ভবনের ছাদে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কিশোরী আহত         পরকিয়ার টানে তিন সন্তানকে হত্যার চেষ্টা মায়ের, ১জনের মৃত্যু        

শাবি শিক্ষার্থীর আত্নহত্যা

শাবি প্রতিনিধি: সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

মৃত আছিয়া আক্তার বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ২০১৯-২০ বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার বাড়ি বগুড়া সদরের নামুজা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মথুরা গ্রামে।

পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, ‘সকালে ফজরের নামাজের পর আছিয়ার মা ঘরের বারান্দাতে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। তার এলাকাতে এক ছেলের সাথে সম্পর্ক ছিল । যা নিয়ে বাড়িতে বেশ কিছু দিন থেকে পরিবারের সবাই আছিয়ার সাথে কথাবার্তা বলছিল। এ নিয়ে মানসিকভাবে বেশ চাপে ছিল আছিয়া।’

এই সম্পর্কের জের ধরেই বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের আগে ঘরের বারান্দায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

আত্নহত্যার আগে তিনি ফেসবুকে স্ট্যাটাসে লিখেছেন– ‘আমার ব্যবহারে কেউ কোনো দিন কষ্ট পেলে দয়া করে আমায় মাফ করবেন। কারণ মৃত্যু কার কখন দুয়ারে আসে আমরা কেউ বলতে পারি না; আল্লাহপাক সবাইকে ভালো রাখবেন।’

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) সকালে আত্মহত্যার এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা বিষয়টি অবগত হয়েছি। তার বাড়িতে গিয়ে তার লাশ আমরা উদ্ধার করেছি। আমরা ময়নাতদন্ত করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তার পরিবারের লোকজনের সাথে আলাপ করছি। আর সেখানকার পরিস্থিতি বুঝে আমরা ব্যবস্থা নেব। তবে কি কারণে আত্মহত্যা করেছে এ বিষয়ে কিছু এখনো জানা যায় নি। তবে সে কিছুদিন থেকে মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিল বলে জানা গেছে।

মেয়ের বড়ভাই আল-আমিন জানান, আমরা ইতোমধ্যে থানায় এসেছি। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে বাংলা বিভাগের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. ফারজানা সিদ্দিকা বলেন, আমরা বিষয়টি অবগত হয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেছি। একটা ছেলের সাথে সম্পর্কের জের ধরে আছিয়া আত্মহত্যা করেছে ধারণা করা যাচ্ছে বলে তার বড়ভাই আমাদের জানিয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আবু হেনা পহিল বলেন, ‘বিষয়টা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা খোজখবর নিচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি স্যার ও বিভাগের শিক্ষকেরাও কথা বলতেছে। আর পুলিশও খোজখবর নিচ্ছে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানার জন্য।’

এর আগে চলতি বছরের ৬ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের আরেক শিক্ষার্থী তোরাবি বিনতে হক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed