Main Menu
শিরোনাম
সুনামগঞ্জে দ্বিতীয় দফা বন্যায় জনদূর্ভোগ চরমে         দ্বিতীয় টেস্ট ছাড়াই করোনা নেগেটিভ ঘোষণা!         সিলেটে ১০৫ স্থানে বসবে কোরবানির পশুর হাট         বৃহত্তর জৈন্তার ঘরে ঘরে গ্যাস সংযোগের দাবী         সিলেট জেলায় আরো ৩২ জনের করোনা শনাক্ত         মাধবপুরে গাড়ির চাপায় দুই যুবকের মৃত্যু         সিলেটের ৫ উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পানি বাড়ছে         দ্বিতীয় দফা বন্যা, পানিতে ভাসছে সুনামগঞ্জ         কমলগঞ্জে দুই শিশুকে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ১         সুনামগঞ্জে আরো ১২ জনের করোনা পজিটিভ         কোম্পানীগঞ্জ সীমান্তে ভারতীয়দের গুলিতে যুবক নিহত         সিলেটে শ্রমিকনেতা রিপন হত্যায় মামলা, গ্রেপ্তার ২        

সিলেটে জাপায় বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: সিলেট জেলা জাতীয় পার্টিতে যারা বিশৃঙ্খলা ও বিভ্রান্তির সৃষ্টি করছেন, তাদের বিরুদ্ধে যথাশিগগিরই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব (সিলেট বিভাগ) ও জেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক এটিইউ তাজ রহমান এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

নগরীর জিন্দাবাজারস্থ একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে বুধবার দুপুরে জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা জাতীয় পার্টির সদস্যসচিব ও কেন্দ্রীয় সদস্য উছমান আলীর সঞ্চালনায় লিখিত বক্তব্য রাখেন এটিইউ তাজ রহমান।

তাজ রহমান বলেন, ‘আগামী ১৪ই মার্চ সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন আহবান করা হয়েছিল। করোনাভাইরাসের কারণে জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনসমূহ যেভাবে খোলা মাঠে সভা-সমাবেশ করা থেকে বিরত রয়েছে, তেমনি আমাদের দলের পক্ষ থেকে চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের এমপির নির্দেশে দলের সমস্ত জেলা-উপজেলা সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। একইসাথে সিলেটেও সম্মেলন আপাতত স্থগিত। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ার সাথে সাথে জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলনের পরবর্তী তারিখ ঘোষণা করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘ইতিপূর্বে তথাকথিত তৃণমূল জাতীয় পার্টি দাবি করে কিছু বহিষ্কৃত ব্যক্তি একাধিক সংবাদ সম্মেলন করেছে। যাদের অনেকেই এলডিপি ও জাতীয় পার্টি কাজী জাফরের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। ২০১১ সালে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ পার্টির শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ওই সব ব্যক্তিদের বহিষ্কার করেছিলেন। এদের সাথে সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির কোনো সম্পর্ক বা সম্পৃক্ততা নেই। আমাদের মধ্যে দু-একজনকেও তারা বিভ্রান্ত করার পাঁয়তারা করছেন।’

এটিইউ তাজ রহমান আরো বলেন, ‘রাজনৈতিক সংগঠন চলে দলের গঠনতন্ত্র অনুসারে। এখানে ব্যক্তি মুখ্য বিষয় নয়। এখানে দলের চেয়ারম্যান যাদেরকে দিয়ে কমিটি অনুমোদন দেবেন, বাকি যারা কমিটির ভেতরে অথবা বাইরে থাকবেন, সবাইকে সংগঠনের নিয়ম মেনে চেয়ারম্যানের নির্দেশ মেনে নিবেদিত কর্মী হয়ে কাজ করতে হবে। দলের চেয়ারম্যানের নির্দেশ অমান্য করে যারা গঠনতন্ত্র বহির্ভূত কার্যকলাপে লিপ্ত এবং একাধিক সংবাদ সম্মেলন করে দলকে হেয়প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন, তারা আর যাই হোক দলের নেতা বা কর্মী হতে পারে না।

তিনি সাংবাদিকদের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘আগামীতে যারা জাতীয় পার্টির নাম ব্যবহার করে সংবাদ সম্মেলন ডাকবেন, তাদের কাছে সাংগঠনিক অধিকারটুকু এবং দলের কোন পদ-পদবী নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করছেন, তা আপনারা জেনে নেবেন।’

তাজ রহমান হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘রাজনীতিতে মতবিরোধ থাকবে, প্রতিযোগিতা থাকবে, কিন্তু প্রতিহিংসার স্থান নেই। যে বা যারা দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের নামে ব্যক্তিগত আক্রমণ, সামাজিক ও পারিবারিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করে যে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন, তা আইনের চোখে যেমন অপরাধ, ঠিক তেমনি সাংগঠনিকভাবেও তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। দলের চেয়ারম্যান ইতিমধ্যে জানিয়েছেন, যথাশিগগিরই এসব ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পার্টি নেতা তাজ রহমান বলেন, ‘দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের স্পষ্ট জানিয়েছেন, দল ছোট হয়ে গেলেও সমস্যা নেই। কিন্তু দল করতে হয়ে শৃঙ্খলা মেনে। বিশৃঙ্খলাকারীদের কোনো স্থান দলে নেই।’ আগামী সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি জেলা জাতীয় পার্টির কোনো দায়িত্বে আসবেন না বলেও মন্তব্য করেন তাজ।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা মো. আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী, মকসুদ ইবনে আজিজ লামা, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুদ্দিন খালেদ, কেন্দ্রীয় সদস্য মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, আব্দুল মালেক খানসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed