Main Menu
শিরোনাম
সিলেটে বিষপানে যুবতীর মৃত্যু         করোনায় মারা গেলেন সিকৃবির প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক         বিশ্বনাথে কৃষকদের মধ্যে ধানের বীজ ও সার বিতরণ         গোলাপগঞ্জে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত্যু         জাদুকাটার বালু মহাল ইজারা প্রদানের দাবীতে মানববন্ধন         সিলেটে করোনায় আরো ২ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৩৯         বিশ্বনাথে সিএনজি চালক-যাত্রীর মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ৬         ট্যাকেরঘাট স্কুলের পুর্নমিলনী রেজিষ্ট্রেশন শুরু         কমলগঞ্জে নবনির্মিত দু’টি শহীদ মিনারের উদ্বোধন         ছাতকে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজছাত্র নিহত         সুনামগঞ্জে ঝড়ে রাস্তায় ভেঙে পড়ল বিদ্যুতের ১১টি খুটি         বিশ্বনাথে মাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা!        

সিলেটে ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

বৈশাখী নিউজ ২৪ ডটকম: সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে তেলবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রেলের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা খায়রুল ইসলামকে প্রধান করে গঠিত কমিটিকে তিনদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রেলওয়ে সিলেট স্টেশনের কর্মকর্তারা লাইনচ্যুত ট্রেন উদ্ধারে আরও ৭-৮ ঘন্টা সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন।

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের মা্ইজগাওয়ে তেলবাহি একটি ট্রেনের ১০টি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার পর থেকে বন্ধ রয়েছে সিলেটের সাথে সারাদেশের রেল যোগাযোগ। শুক্রবার বিকেল ৪টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাইনচ্যুত হওয়া বগিগুলো উদ্ধার কাজ শেষ হয়নি। ফলে প্রায় ১৬ ঘন্টা ধরে রেলপথে বিচ্ছিন্ন রয়েছে সিলেট। দুপুর পর্যন্ত দুটি ট্রেনের যাত্রা বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টার দিকে চট্রগ্রাম থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে আসা জ্বালানি তেলবাহী ট্রেনের ২১টি বগির মধ্যে ১০টি লাইনচ্যুত হলে তেল ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের এলাকায়।

ঘটনার পর কুলাউড়া থেকে উদ্ধারকারী ট্রেন নিয়ে আসা তিন সদস্যের দল উদ্ধার কাজ শুরু করে। শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত লাইনচ্যুত তেলবাহী ১০টি বগির মাত্র দুইটি উদ্ধার করতে পেরেছেন তারা।

তেলবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হওয়ায় প্রায় ৮০০ মিটার রেললাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রেললাইন সংস্কার করে বগি উদ্ধারের পর সচল হবে রেলযোগযোগ। উদ্ধারকাজ আজকে শেষ নাও হতে পারে, এমনটিও জানিয়েছেন রেলওয়ের একাধিক কর্মী।

শুক্রবার মাইজগাওয়ে দুর্ঘটনাস্থলে যান রেলওয়ের বিভাগীয় আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) সাদিকুর রহমান। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হতে ককতক্ষণ সময় লাগতে পারে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, রেলওয়ের ৬টি ইউনিটের ২০০ জন কর্মী লাইনচ্যুত বগিগুলো উদ্ধারে কাজ করছে। উদ্ধারকারী ট্রেনও সকাল থেকে কাজ করছে। তবে যে জায়গায় ট্রেন লাইনচ্যুত হয়েছে সেখানে একটি সেতু রয়েছে। এই সেতুর কারণে উদ্ধারকাজে কিছুটা সময় লাগছে। সেতুটি যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় এজন্য সতর্কতার সাথে কাজ করতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, উদ্ধার কাজ শেষ হতে আরও কয়েকঘন্টা সময় লাগতে পারে। তবে ঠিক কতসময় লাগবে তা নির্দিষ্ট করে বলা যাবে না। উদ্ধার কাজ শেষ হলেই রেল যোগাযোগ চালু হবে।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া রেলওয়ে স্টেশনের সিনিয়র সাব অ্যাসিস্টেন্ট মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার দুলাল চন্দ্র দাস জানান, চট্রগ্রাম থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে আসা জ্বালানি তেলবাহী ট্রেনের ২১টি বগির মধ্যে ১০টি লাইনচ্যুত হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে দুইটি বগি উদ্ধার করতে পেরেছি।

বাকিগুলো উদ্ধারে আরও অন্তত ৭-৮ ঘণ্টা সময় লেগে যেতে পারে। লাইনচ্যুত অবশিষ্ট বগিগুলো উদ্ধারে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন থেকে উদ্ধারকারী ট্রেন সকাল ৯টার দিকে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ শুরু করেছে।

সিলেট রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার মো. খলিলুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনার কারণে ঢাকা থেকে আসা আন্তঃনগর উপবন এক্সপ্রেস কুলাউড়ায় ও চট্রগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেন শ্রীমঙ্গলে আটকা পড়েছে। রেলপথ স্বাভাবিক হতে কতটা সময় লাগবে, তা এখনো নিশ্চিত করে বলতে পারেননি তিনি।

তেলবাহী ট্রেনটি ২১টি বগি নিয়ে আসছিল। এরমধ্যে ১০টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

গত চার মাসে সিলেট-আখাউড়া রেলপথে এনিয়ে তিনবার তেলাবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হয়। এরআগে গত নভেম্বরে শ্রীমঙ্গলে ও ডিসেম্বরে মাধবপুরে বগি লাইনচ্যুত হয়ে দীর্ঘসময় বন্ধ ছিলো রেল যোগাযোগ।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed