Main Menu
শিরোনাম
বিশ্বনাথে সড়ক নির্মাণে ব্যবহার হচ্ছে নিম্নমানের ইটের খোয়া         মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতের ছড়া থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার         ৯৯৯-এ কল পেয়ে রক্তাক্ত মোটরসাইকেল রাইডারকে উদ্ধার         বিশ্বনাথ-জগন্নাথপুর সড়কে কাজের ধীরগতি, দূর্ভোগে যাত্রীরা         সিলেটে ট্রাক্টরচাপায় কিশোর নিহত         সিলেটে করোনায় আরো ২ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৪৩         লাখাইয়ে গণপিটুনিতে দুই ডাকাত নিহত         সিলেটের দুই ল্যাবে আরো ১০১ জনের করোনা শনাক্ত         জাফলংয়ে নদীতে পাথর তুলতে গিয়ে কিশোরের মৃত্যু         অনলাইন ক্লাসে ধূমপান, ভাইরাল শাবি শিক্ষক!         কমলগঞ্জে তালা ভেঙ্গে কাপড়ের দোকানে চুরি         কমলগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ গাড়িতে দুধ ডিম মাংস বিক্রি শুরু        

বিপুল উৎসাহে সিলেটে হাফ ম্যারাথন সম্পন্ন

স্পোর্টস ডেস্ক: সিলেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো হাফ ম্যারাথন। এতে সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা অন্তত এক হাজার দৌড়বিদ অংশগ্রহণ করেন।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) ভোর ঠিক ছয়টায় আলী আমজাদের ঘড়িতে ঘণ্টা বাজার সাথে সাথে রানার্স কমিউনিটি এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি ব্র্যান্ডল্যান্সার এর যৌথ উদ্যোগে নগরীর ঐতিহ্যবাহী ক্বিন ব্রিজ থেকে শুরু ব্র্যান্ডল্যান্সার হাফ ম্যারাথন শুরু হয়।

ম্যারাথনে আয়োজকরা ২টি বিভাগে প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন। যেখানে ছিলো হাফ ম্যারাথন ২১ দশমিক ১ কিলোমিটারের নবীন দৌড়বিদের বিভাগ এবং এর পাশাপাশি ৭ দশমিক ৫ কিলোমিটারের প্রবীণ বিভাগ যেখানে পুরুষ-নারী ৫০ ঊর্ধ্ব বয়সী প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেন।

ম্যারাথনটি নগরীর ক্বিন ব্রিজ এলাকা থেকে ভোর ৬ টায় শুরু হয়ে নগরীর শেখঘাট পয়েন্ট হয়ে রিকাবীবাজার, চৌহাট্টা, নয়াসড়ক, শাহী ঈদগাহ থেকে আম্বরখানা বড়বাজার হয়ে খাসদবির থেকে এয়ারপোর্ট রোডের চা বাগানের নয়নাভিরাম রাস্তা প্রদক্ষিণ করে লাক্কাতুরায় সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এসে শেষ হয়।

এদিকে বিশ্বের দরবারে সিলেটের সাংস্কৃতিক পরিচয় তুলে ধরতে এই হাফ ম্যারাথনে সম্পূর্ণ ইভেন্টের প্রতিপাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে সিলেটের সংস্কৃতি এবং সিলেটের নিজস্ব নাগরী ভাষার হরফ নাগরিলিপি।

আয়োজক সিলেট রানার্স কমিউনিটির সংগঠকেরা জানান, ক্বিন ব্রিজ থেকে সদর উপজেলার বাইশটিলা হয়ে উল্টো ঘুরে লাক্কাতুরা বিভাগীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে ২১ কিলোমিটার হাফ ম্যারাথন শেষ হয়। এতে অংশ নেন চার শতাধিক দৌড়বিদ।

নির্ধারিত নির্দিষ্ট কিলোমিটার পথ দৌড়ে ৭ দশমিক ৫ কিলোমিটার প্রতিযোগিতার পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, সাজ্জাদ হোসাইন স্নিগ্ধ, প্রথম রানারআপ- খাইরুল বাসার এবং দ্বিতীয় রানারআপ- মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ।

নারী বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, শারমিন আক্তার সুপ্তা, প্রথম রানারআপ নাসরিন বেগম, দ্বিতীয় রানারআপ- নার্গিস জাহান ওহাব।

অন্যদিকে ২১ দশমিক ১ কিলোমিটার প্রতিযোগিতার পুরুষ বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, মোহাম্মদ আল আমিন, প্রথম রানারআপ- মাহবুবুর রহমান এবং দ্বিতীয় রানারআপ- আশরারুল আলম কাশেম।

নারী বিভাগে চ্যাম্পিয়ন, সারওয়াত পারভিন, প্রথম রানারআপ – হামিদা আক্তার জেবা, দ্বিতীয় রানারআপ- দোলা বড়ুয়া।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – জেলা প্রশাসক জনাব এম কাজি এমদাদুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিসিবি ডিরেক্টর জনাব শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল ও সিলেট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ জহুর আহমেদ।

সংগঠকেরা জানান, সুস্বাস্থ্য গঠনে আগ্রহ সৃষ্টির লক্ষে এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখার চেষ্টা করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীদের জন্যে ছিলো একটি জার্সি, মেটাল মেডেল এবং ইভেন্ট পরবর্তী স্বাস্থ্যকর স্নাকস এর সুব্যবস্থা ।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed