Main Menu
শিরোনাম
নবীগঞ্জে মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু         সিলেটে ১ হাজার ৪০৬ গৃহহীন পেলেন নতুন বাড়ি         সিলেটে করোনায় আরো ৬ জন আক্রান্ত, সুস্থ ৪৭ জন         ধোপাগুলে শিশুকে ধর্ষণ, যুবক আটক         খাদিমে নাঈম খুন, ডেকে নেওয়া বন্ধু আটক         সিলেটে বিচারককে ঘুষ প্রদানের চেষ্টা, এসআই ক্লোজড         সিলেটে মদসহ ৩ মাদককারবারী আটক         দক্ষিণ সুরমায় পুলিশী অভিযানে ৬ জুয়াড়ী আটক         জকিগঞ্জে যুবলীগ নেতা আহাদকে দল থেকে বহিস্কার         ‘পাঙ্গাস মাছের মড়ক রোধ করবে বায়োফিল্ম ভ্যাক্সিন’         জকিগঞ্জে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী হিরা বহিস্কার         সিলেটে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন        

উন্নয়নের ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত একটি গ্রাম

ছাতক প্রতিনিধি: উন্নয়নের ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার ৮নং দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নে হাওর-বিল সমৃদ্ধ অবহেলিত একটি গ্রাম হচ্ছে শেওলাপাড়া। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে বর্তমান সরকারের আমলে চারদিকে উন্নয়নের জোয়ারে ভাসলেও উন্নয়নের ছোয়া পায়নি এ গ্রামের অবহেলিত মানুষ।

দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড। এর মধ্যে ৮টি ওয়ার্ডে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড ব্যাপকভাবে চলমান রয়েছে। গ্রামীণ জনপদের এ অবহেলিত গ্রামটিতে দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন চোখে পড়েনি। সামান্য বৃষ্টিতে গ্রামীণ সড়কটি পানিতে তলিয়ে যায়। এ ওয়ার্ডে একটি ইবতেদায়ী মাদ্রাসা ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এ প্রাথমিক বিদ্যালয়টি সংসদ নির্বাচন ও ইউপি নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

স্থানিয়রা জানান, গ্রামের সকল মানুষই কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। এই গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য যে রাস্তাটি রয়েছে সেটি মাটির তৈরী কাঁচা রাস্তা। সামান্য বৃষ্টিতে প্যাক-কাঁদায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। বর্ষা মৌসুমে মাদ্রাসা, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়তই কষ্ট করে এ সড়ক দিয়ে পায়ে হেটে চলাচল করে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে প্রত্যেকটি গ্রামকে শহর করার ঘোষণা দিয়েছেন, যেন শহর এবং গ্রামের মধ্যে কোন বিভেদ না থাকে। অথচ গ্রামীণ জনপদের হাওড় পাড়ের এ গ্রামটি উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে পড়ে আছে।

গ্রামের বাসিন্দা হাসান আহমদ জানান, গ্রামবাসীর দুঃখ যে কবে শেষ হবে ? কি বা বর্ষা কি বা শীতকাল সবসময় প্রায় হাটু সমান পানি কাদা জমে থাকে। আমরা শেওলাপাড়া সব চেয়ে অবহেলিত গ্রামের হাজারো মানুষ। আমাদের রাস্তাঘাট মনে হয় কোন দিন পাকা তো হওয়া দুরের কথা মাঠি ভরাটও হবে না। আর হলেও মনে হয় আমরা দেখে যেতে পারবো না। ভোটের সময় আসলে প্রতিশ্রতি দিয়ে ভোট নেয় জনপ্রতিনিধিরা। ভোট দেয়া হয়ে গেলে নেতারা আর কখনো এ গ্রামে আসেন না।

এ ব্যাপারে গ্রামের আমির উদ্দীন ও হুসাইন আমহদ জানান, এ ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে সরকারের উন্নয়ন কাজ চলমান থাকলেও এ ওয়ার্ডের শেওলাপাড়া গ্রামে কোন কাজ হচ্ছে না। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে এ গ্রামে কোন কাজ হয় না। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এ ওয়ার্ডে কাজ হবে হচ্ছে বলেন সব সময় কিন্তুু কাজ করেন না ।এ গ্রামের সড়কে গাড়ি-সিএনজি চলাচল তো দূরে থাক, পাঁয়ে হেটে চলাও দুস্কর। স্থানীয় গ্রামবাসী এ গ্রামের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed