Main Menu
শিরোনাম
শাবির ল্যাবে আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত         জকিগঞ্জে ১১০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩         নবীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় বৃদ্ধ নিহত, আহত ৩০         বালাগঞ্জে কনু মিয়ার খুনীদের গ্রেফতার দাবি         বিশ্বনাথে আত্মহত্যার প্ররোচনাকারীদের গ্রেপ্তার দাবি         সিলেটে শিশু অপহরনকারী চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার         বিশ্বনাথে কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩         সিলেট বিভাগে আক্রান্ত বেড়ে ৬২৮৪, মৃত্যু ১১০         জাফলং গ্রীণপার্ক থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার         সিলেটের দুই ল্যাবে ১৫০ জনের করোনা শনাক্ত         বিয়ের ৫ দিনের মাথায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু         সুনামগঞ্জে আরো ৩৫ জনের করোনা শনাক্ত        

কমলগঞ্জে লেবু বাগান ধ্বংস করলো বনবিভাগ

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রাজকান্দি ফরেষ্ট রেঞ্জের কামারছড়া বনে নতুন নার্সারি করতে গিয়ে রফিক মিয়া নামের এক বন ভিলেজারের ফলনকৃত লেবু বাগান কেটে ধ্বংস করা হয়েছে।

কামারছড়া বনবিট কর্মকর্তার নির্দেশে প্রায় আড়াই হাজার লেবু গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। এতে প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে বন ভিলেজার রফিক মিয়া অভিযোগ করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, কামারছড়া বনবিটের রাজকান্দি গ্রামের মৃত ঠাকুর মিয়ার ছেলে রফিক মিয়া একজন বন বিভাগের ভিলেজার। বন রক্ষায় নিয়মিত টহলের পাশাপাশি জীবিকা নির্বাহের জন্য তিনি বন ভিলেজার হিসাবে বনের ৬০ শতাংশ জায়গায় প্রায় ২০ বছর ধরে ধান, আঁখসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন করে আসছিলেন। বন্য শুকররা ফসলাধি নষ্ট করে ফেলায় গত ১০ বছর ধরে তিনি ওই জায়গায় লেবু চাষ করেন।

স¤প্রতি ওই জায়গায় নার্সারি করার উদ্যোগ নেয় বনবিভাগ। কিন্তু বন ভিলেজার রফিক মিয়াকে না জানিয়েই লেবু বাগান কেটে ধ্বংস করা হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফরেষ্ট গার্ড সোহেল আহমদসহ আরো ৪-৫ জন শ্রমিক নিয়ে লেবু বাগান কেটে ধ্বংস করছেন। কাটা প্রতিটি গাছে রয়েছে ছোট-বড় অসংখ্য লেবু।

আলাপকালে ফরেষ্ট গার্ড সোহেল বলেন, তিনি কামারছড়া বন বিটে নতুন এসেছেন। রেঞ্জ কর্মকর্তা আবু তাহের ও বিট কর্মকর্তা মীর বজলুর রহমানের নির্দেশে নতুন নার্সারি তৈরির জন্য তিনি লেবু গাছ কেটে জায়গা করছেন।

আলাপকারে বন ভিলেজার রফিক মিয়া জানান, তার লেবু বাগানে প্রায় আড়াই হাজার লেবু গাছ রয়েছে। প্রতিটি গাছে ফল আসায় গাছে গাছে রয়েছে ছোট-বড় কয়েক লাখ লেবু। তিনি বন বিভাগকে অনুরোধ করেছিলেন লেবু বিক্রির পর গাছগুলো কাটার জন্য। কিন্তু বনবিট কর্মকর্তা তার অনুরোধ না রাখায় তার দীর্ঘদিনের পরিশ্রম মাটি হয়ে গেছে। এতে তার প্রায় ৫ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

স্থানীয় রুবেল মিয়া, দুরুদ মিয়া ও সোলেমান মিয়া বলেন, একজন বন ভিলেজারের মাথাপিছু ৩ একর জমি কৃষি ক্ষেত করার জন্য পেয়ে থাকেন। কিন্তু রফিক মিয়া মাত্র ৬০ শতক জমিতে কৃষি ক্ষেত করেছিলেন। ওই জমিতে রফিক মিয়ার বাবা-দাদারাও দীর্ঘদিন কৃষি ক্ষেত করে এসেছেন। কিন্তু হঠাৎ করে নতুন নার্সারি তৈরীর নামে ফসল ধরা লেবু বাগান কেটে মাটির সাথে মিশিয়ে দেওয়ায় রফিক মিয়া আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলেন।

এ বিষয়ে বনবিট কর্মকর্তা মীর বজলুর রহমান বলেন, ‘নতুন নার্সারী করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই লেবু বাগান কাটা হয়েছে। বনে এতো জমি থাকতে ফলন ধরা লেবু গাছ কেটে নার্সারী করার কি প্রয়োজন ছিল এমন প্রশ্নের জবাবে বিট কর্মকর্তা বলেন, বন ভিলেজারের সাথে আলোচনা করেই গাছগুলো কাটা হয়েছে।’

0Shares





Related News

Comments are Closed