Main Menu

‘আ.লীগ পেঁয়াজ ছাড়া খেতে পারলেও জনগণ পারে না’

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে দেশ ব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনপি সিলেটে প্রতিবাদ সভা করেছে। সোমবার নগরীর রেজিস্ট্রি মাঠে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেছেন, আওয়ামীলীগ পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করে খেতে পারলেও দেশের মানুষ পেঁয়াজ দিয়ে রান্না করে খায়। গণভবনে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করে খাওয়া হয়, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। প্রধানমন্ত্রী এ ধরণের মিথ্যা কথা বলে জাতিকে উপহাস করেছেন। বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘরে গেলে দেখা যাবে আরো বেশি করে পেঁয়াজ দিয়ে রান্না হয়।

বিকেলে সিলেট জেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির আহবায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার। আহবায়ক কমিটির সদস্য মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়ছলের পরিচালনায় সভায় বক্তারা বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, সৌদি আরব পেয়েছে সোনার খনি আর আমি পেয়েছি চোরের খনি। তাই দেশ এখন লোটেরা ও চোরদের দখলে রয়েছে।

বিএনপি নেতারা বলেন, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী দু’দিন আগে বলেছেন, সিন্ডিকেটের কারনে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। বিএনপি নেতারা শফিকের এই বক্তব্যের সাথে একমত হয়ে বলেন, আওয়ামীলীগ সিন্ডিকেট করে দাম বাড়াচ্ছে। বিএনপি এই সিন্ডিকেট করেনি।

শুধু পেঁয়াজ নয়, দাম বেড়েছে চাল, সব্জি, ঔষধসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রের। তাই সরকারের উপর জনগনের নাভিশ্বাস উঠেছে। তাই সরকারকে এখনি ক্ষমতা থেকে বিদায় নিয়ে দেশের জনগণকে মুক্তি দেয়ার আহবান জানান বক্তারা। ১৯৭৪ সালে মুজিব সরকারের আমলে মানুষ দুর্ভিক্ষে মারা গিয়েছিলো। বর্তমান সরকারের আমলে জিনিষপত্রের দাম যেভাবে বাড়ছে সেটা ৭৪ সালের দুর্ভিক্ষের লক্ষণ বলে মনে করেন বিএনপি নেতারা।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, সরকারের সময় কমিয়ে আসতেছে। তাই সিন্ডিকেট করে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়িয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ব্যাংক, কয়লার খনি, শেয়ার বাজারসহ সবকিছু লুটে খেয়ে এখন শেষমেশ পেঁয়াজের দাম কারসাজি করে বাড়িয়ে শেষ পর্যায়ে তারা চলে এসেছে।

সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও আহবায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদ, আহবায়ক কমিটির সদস্য সামিয়া বেগম চৌধুরী, এমরান আহমদ চৌধুরী, সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, মাজহারুল ইসলাম ডালিম, আবুল কাশেম, আহমেদুর রহমান চৌধুরী মিলু, শামিম আহমদ, এ কে এম তারেক কালাম, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন আহবায়ক মওদুদুল হক, জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মকসুদ আহমদ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, মহানগর সাধারন সম্পাদক ফজলে রাব্বি আফসান, জেলার ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন নাদিম, যুবদলের লিটন আহমদ। শুরুতে কুরআন তেলাওয়াত করেন হাটখোলা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক আলী আকবর।

0Shares





Related News

Comments are Closed