Main Menu
শিরোনাম
সিলেটের ৬ উপজেলায় জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিতরণ         তাহিরপুর সীমান্তে ভারতীয় কয়লার চালান জব্দ         দিরাইয়ে জুমার নামাজে এসে মারা গেলেন মুসুল্লি         সিলেটে ডায়রিয়ার প্রকোপ, ৭ দিনে আক্রান্ত সাড়ে ৫শ’         কুলাউড়ায় স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ, আটক ২         পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের ত্রাণ বিতরণ         গোয়াইনঘাটে বন্যার্তদের মাঝে বিএনপির ত্রাণ বিতরণ         জিয়ার ৪১তম শাহাদাতবার্ষিকীতে সিলেটে বিএনপির ২দিনের কর্মসূচী         হবিগঞ্জে মন্ত্রীপরিযদ সচিব ও সাবেক তথ্য সচিব         দাউদপুর ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা         সিলেটে ভূমি নিয়ে বিরোধে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ২০         সিলেটে বন্যায় ক্ষতি ১১০০ কোটি টাকা, বেশি ক্ষতি সড়ক, কৃষি ও মাছের        

দেশে ফিরল ভারতে পাচার হওয়া ২১ নারী ও শিশু

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: বিভিন্ন সময় ভারতে পাচার হওয়া ২১ বাংলাদেশি নারী ও শিশুকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে স্বদেশ প্রত্যাবাসন আইনে হস্তান্তর করা হয়েছে।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ভারতের কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সেক্রেটারি শামিমা ইয়াসমিন স্মৃতি এসব নারী শিশুদের বেনাপোল সীমান্তে ফেরত পাঠায়।

৩ থেকে ৫ বছর আগে দালালের খপ্পরে পড়ে ভালো কাজের প্রলোভনে এরা দেশের বিভিন্ন সীমান্তপথে ভারতে গিয়েছিল।

এ সময় অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে আদালতে পাঠায়। পরে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাস তাদেরকে ছাড়িয়ে নিজেদের জিম্মায় রাখে।

আইনি ব্যবস্থাপনা শেষে রাষ্ট্রীয় প্রক্রিয়ায় দুই দেশের সরকারের দেওয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটে এরা দেশে ফেরার সুযোগ পায়।

ফেরত আসা নারী, শিশুদের আইনি সহায়তা প্রদান ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে গ্রহণ করেছে বাংলাদেশি মানবাধিকার সংস্থা জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার, বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতি ও রাইটস যশোর নামে তিনটি সংস্থা।

ফেরত আসা ২১ বাংলাদেশির মধ্যে ১৫ জন নারী ও ৬ জন শিশু রয়েছে। তাদের বাড়ি যশোর, সাতক্ষীরা, খুলনা, ঢাকা ও বরিশাল জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে।

এদিকে পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা দুর্বল হওয়ায় দিন দিন পাচার বাড়ছে বলে অভিমত মানবাধিকার কর্মীদের। ফেরত আসা নারীদের ফিরে পেয়ে খুশি অভিভাবকরা। তবে পাচারকারীদের শাস্তি চেয়েছেন ভুক্তভোগী নারী ও তাদের অভিভাবকরা।

বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতির মানবাধিকার কর্মী রেখা বিশ্বাস জানান, ভালো কাজের কথা বলে ভারতে নিয়ে দালালরা নানান ঝুঁকিমূলক কাজে এসব নারী ও শিশুদের ব্যবহার করত। সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। ফেরত আসা এসব নারীদের আইনি সহায়তা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য কাজ করবে মানবাধিকার সংস্থাগুলো।

রাইটস যশোরের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কুমার মল্লিক জানান, প্রতি বছর দেশের বিভিন্ন সীমান্তপথে হাজার হাজার নারী ও শিশু পাচার হচ্ছে। পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা দুর্বল হওয়ায় কোনোভাবে থামছে নারী ও শিশু পাচার।

0Shares





Related News

Comments are Closed

%d bloggers like this: