Main Menu
শিরোনাম
খাদিমে নাঈম হত্যা, আরও ২ কিশাের গ্রেপ্তার         সিলেটে দুই ল্যাবে ৪ জনের করোনা শনাক্ত         সিলেটে আরও ৩০ জনের করোনা শনাক্ত, সুস্থ ৫৭         প্রবাসী পরিচয়ে তরুণীর সর্বনাশ, প্রতারক গ্রেপ্তার         জামিন পেলেন সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র নাদের বখত         সুনামগঞ্জে নতুন ঘর পাচ্ছে ৩৯০৮টি গৃহহীন পরিবার         কমলগঞ্জে প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষনের শিকার         নবীগঞ্জে মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু         সিলেটে ১ হাজার ৪০৬ গৃহহীন পেলেন নতুন বাড়ি         সিলেটে করোনায় আরো ৬ জন আক্রান্ত, সুস্থ ৪৭ জন         ধোপাগুলে শিশুকে ধর্ষণ, যুবক আটক         খাদিমে নাঈম খুন, ডেকে নেওয়া বন্ধু আটক        

‘জেলা পুলিশের তত্তাবধানেই আটক হয় আকবর’

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: এসআই আকবরকে গ্রেফতারের ঘটনায় সিলেট জেলা পুলিশের এক জনাকীর্ন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সার্বিক পিরিস্থিতি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে এসপি ফরিদ উদ্দিন বলেন, সিলেট জেলা পুলিশ তিন দিন থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে। পুলিশের কাছে খবর আসে সে ভারতে পালিয়ে যেতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা খবর পাই আকবর ভারতে পালিয়ে যেতে পারে । সে অনুযায়ী আমরা জেলা পুলিশ সীমান্তবর্তী এলাকায় গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করি । সংবাদ সম্মেলননে ডিআইজি মফিউজ উদ্দিনও বক্তব্য রাখেন ।

এসপি বলেন, জেলা পুলিশের প্রত্যক্ষ তত্তাবধানেই আকবরকে গ্রেফতার করা হয়েছে । এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা মানুষের সহযোগিতা নিয়ে তাকে ধরেছি । ভারতে কে কেন কি ভিডিও করেছে আমরা জানিনা। তবে আমাদের কিছু বিশ্বস্থ বন্ধু আমাদের সহযোগিতা করেছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অভিযুক্ত নোমানকে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হয়েছে । যেহেতু মূল আসামীকে ধরা হয়েছে তাকেও ধরা হবে । তিনি বলেন আজই পিবিআই এর কাছে আকবরকে হস্তান্তর করা হবে।

তিনি বলেন, সকাল নয়টায় গ্রেফতার করে দুপুরে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন।

ডিআইজি মফিজ উদ্দিন বলেন, অপরাধ করে কারো পার পাওয়ার সুযোগ নেই । যে কোন ঘটনায় যে কেউ অপরাধী হলে তাকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে ।

এরআগে সোমবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৫টা ৫৫ মিনিটে কঠোর নিরাপত্তায় সিলেট পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয় রায়হান আহমদ নিহতের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত পুলিশের বহিষ্কৃত উপ পরিদর্শক আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে। এসময় বিক্ষুব্ধ জনতা আকবরের ফাঁসি চেয়ে স্লোগান দিতে থাকেন।

এর আগে ঘটনার ২৮ দিন পর সোমবার দুপুরে কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকা থেকে এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এদিকে সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে ‘নির্যাতনে’ রায়হান আহমদ নিহতের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত, পুলিশের বহিষ্কৃত উপ পরিদর্শক আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তারের খবর শুনে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে ভিড় করেছেন উৎসুক জনতা।

সোমবার সন্ধ্যায় বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ি ও সিলেট পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে শতাধিক মানুষ আকবরের ফাঁসি চেয়ে স্লোগান দেয়।

এসময় সিলেটের সচেতন ছাত্র সমাজ নামে একটি সংগঠন পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে।

এর আগে ঘটনার ২৮ দিন পর সোমবার দুপুরে কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকা থেকে এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত ১০ অক্টোবর শনিবার মধ্যরাতে রায়হানকে নগরীর কাষ্টঘর থেকে ধরে আনে বন্দরবাজার ফাঁড়ি পুলিশ। পরদিন ১১ অক্টোবর ভোরে ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। রায়হানের পরিবারের অভিযোগ, ফাঁড়িতে ধরে এনে রাতভর নির্যাতনের ফলে রায়হান মারা যান। ১১ অক্টোবর রাতেই রায়হানের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার বাদী হয়ে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনে মামলা করেন।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed