Main Menu

করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া

স্বাস্থ্য ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের মহামারি ঠেকানোর বৈশ্বিক দৌড়ে শামিল হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটির জাতীয় বিজ্ঞান সংস্থার পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) বলা হয়েছে, তারা কোভিড-১৯ এর সম্ভাব্য ভ্যাকসিন পরীক্ষার প্রথম পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে। দুটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন নিয়ে মেলবোর্নের কাছে একটি পরীক্ষাগারে কমনওয়েলথ সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ অর্গানাইজেশনের (সিএসআইআরও) প্রাক-ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা শুরু হবে।

প্রাথমিক পর্যায়ের এ পরীক্ষা সম্পন্ন হতে তিন মাস সময় লাগবে বলে জানান সিএসআইআরওর স্বাস্থ্য পরিচালক রব গ্রেনফেল। তবে তিনি বলেন, আগামী বছরের শেষ নাগাদ ছাড়া কোনো ভ্যাকসিন হাতে পাওয়া যাবে না।

গ্রেনফেল বলেন, সাধারণ গ্রাহকদের হাতে ভ্যাকসিন তুলে দিতে ১৮ মাস সময়সীমার মধ্যেই কাজ শেষ করার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী। অবশ্যই এর পরিবর্তন হতে পারে। কারণ, আমাদের অনেকগুলো কারিগরি বাধা দূর করে এগোতে হবে।

অস্ট্রেলিয়ার এ গবেষক বলেন, বিজ্ঞানীরা অত্যন্ত দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন। মাত্র ৮ সপ্তাহে প্রাক-ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা স্তরে চলে এসেছে। এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতেই দুই বছর পর্যন্ত সময় লাগে।

জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে, এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ৯ লাখ ৫ হাজার ৯৫৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৪৭ হাজার ২৪৫ জন। শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্ত এখন দুই লাখের বেশি মানুষ। রয়টার্স জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ায় এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৫ হাজার ২০০ জন ও ২৪ জন মারা গেছেন।

গ্রেনফেল বলেন, তাদের তৈরি করোনাভাইরাসের দুটি ভ্যাকসিন এ মাসের শেষের দিকে বা আগামী মাসের শুরুতে মানবদেহে প্রয়োগ শুরু হবে।

সিএসআইআরও বলেছে, পরীক্ষায় ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা পরীক্ষা ও মূল্যায়ন করে দেখা হবে এবং উন্নত সুরক্ষার জন্য ইনজেকশন ও নাকের স্প্রে তৈরি করা হবে।

0Shares





Related News

Comments are Closed