Main Menu

গ্রামীনফোনের কলরেট বাড়ছে

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: কলরেট বাড়ানো হচ্ছে শীর্ষ মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণ-ফোনের। বাড়ছে আন্তঃসংযোগ ফিও। এমনকি অন্য অপারেটরদের প্যাকেজের অনুমোদন নিতে না হলেও গ্রামীণফোনকে প্যাকেজ অনুমোদন করিয়ে নিতে হবে বিটিআরসি থেকে। ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার বিটিআরসির কমিশন বৈঠকে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তবে সিদ্ধান্তগুলো কার্যবিবরণীতে এখনো তোলা হয়নি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে দু-একদিনের মধ্যে বিষয়টি কার্যবিবরনীতে উঠবে। আগামী সপ্তাহে এ বিষয়ে গ্রামীণফোনকে চিঠি দেবে বিটিআরসি। এসএমপি (সিগনিফিকেন্ট মার্কেট পাওয়ার) ঘোষিত কোম্পানি হিসেবে বেশ কিছু বিধি নিষেধের মধ্যে পড়তে হবে গ্রামীণফোনকে। এই সিদ্ধান্তগুলো সেই প্রক্রিয়ারই অংশ বলে জানা গেছে।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহুরুল হক গ্রামীণফোনের কলরেট বাড়ানোর কথা সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেছেন।

কমিশন বৈঠক সূত্র জানায়, কমিশন বৈঠকে গ্রমীণফোনের এসএমপি বিষয়টি এজেন্ডায় ছিল। সেখানে আলোচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অন্য অপারেটরদের যেখানে সর্বনিম্ন কলরেট ৪৫ পয়সা সেখানে গ্রামীণফোনের সর্বনিম্ন কলরেট হবে ৫০ পয়সা। আন্তঃসংযোগ ফি (এক অপারেটর থেকে অন্য অপারেটরে) অন্য অপারেটরদের ১০ পয়সা। সেখানে গ্রামীণফোনকে দিতে হবে ১৫ পয়সা। অর্থাৎ টেলিটক থেকে যদি কেউ গ্রামীণফোনে ফোন করেন তাহলে টেলিটক গ্রামীণফোনকে আন্তঃসংযোগ ফি হিসেবে ১০ পয়সা দেবে। কিন্তু গ্রামীণফোন থেকে কেউ যদি টেলিটকে ফোন করেন তাহলে গ্রামীণফোন টেলিটককে ১৫ পয়সা দেবে। পাশাপাশি বর্তমানে সবগুলো অপারেটরই প্যাকেজ তৈরির বিটিআরসিকে অবহিত করলেই হয়।

কিন্তু এই সিদ্ধান্তের ফলে গ্রামীণফোনকে শুধু অবহিত করলে হবে না, বিটিআরসি থেকে অনুমোদন করিয়ে নিতে হবে। এসব সিদ্ধান্ত না মানলে গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

0Shares





Related News

Comments are Closed