Main Menu

সুনামগঞ্জে এক সাংবাদিকের উপর ২য় দফা হামলা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের পাটানপাড়া গ্রামে প্রতিপক্ষ আফতাব উদ্দিন ও সৎ ভাইদের হাতে ২য় বার হামলার শিকার হয়েছেন সাংবাদিক হোসাইন মাহমুদ শাহীন (৫৩)।

তিনি স্থানীয় পাটানপাড়া নিবাসী মরহুম সিরাজ মিয়া সর্দারের ২য় পুত্র এবং দৈনিক খবরপত্র পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি ও সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সদস্য।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে পাটানপাড়া গ্রামের বসতবাড়ীর উত্তর পার্শ্বে আফতাব উদ্দিনের হুকুমে প্রতিপক্ষীয় সৎ ভাই শিপন ও রিপনগং বেদম কিল ঘুষি মেরে শাহীনকে রক্তাক্ত জখম করে। ঘটনার পর শাহীন তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন।

ঘটনার পর পরই এসআই মো.জাহাঙ্গীর হোসাইন এর নেতৃত্বে বাদাঘাট ক্যাম্পের পুলিশ দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনাস্থলে শিপন ও রিপনকে দেখতে পান। কিন্তু তিনি শাহীনকে হাসপাতালে প্রেরণ করলেও কাউকে গ্রেফতার করেননি।

জানা যায়, শাহীনের চাচী ফেরদৌস বেগম তার বসতঘর, জমি ও বাজারের দোকানপাট দখলের প্রতিবাদে রিপন, শিপন ও আফতাবগং সহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গত ১৩ সেপ্টেম্বর আমলগ্রহনকারী জুডিসিয়েল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩৮৫/৩৭৯/৫০৬/৪৪৮ ধারায় ১৯৮/২০২২ নং পিটিশন মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশে তাহিরপুর থানার এসআই সাইদুর রহমান ২৮ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর ১টার সময় দায়েরকৃত মামলাটি সরেজমিনে তদন্ত করেন। উক্ত মামলা দায়েরের আক্রোশে আফতাব উদ্দিনের নির্দেশে সন্ত্রাসীরা ফেরদৌস বেগমের ভাসুরের পুত্র শাহীনের উপর হামলা করে।

এর আগে গত ২১ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে বাড়ীর সামনের পাটানপাড়া বাজারস্থ ভৈরবীঘাট দখল করতে এসে শাহীনের উপর প্রথমবার হামলা করে তাকে খুন করার চেষ্টা করে আফতাব উদ্দিন ও তার সহযোগীরা।

তাহিরপুর থানার ওসি সৈয়দ ইফতেকার হোসেন বলেন, আমি ঘটনা জানামাত্র ঘটনাস্থলে পুলিশ প্রেরণ করেছি। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ফেরদৌস বেগমের দায়েরকৃত কোর্ট পিটিশন আমাদের কাছে তদন্তাধীন রয়েছে। আমরা অবশ্যই এ ব্যাপারে আইনগত পদক্ষেপ নেবো। অসহায় শাহীন তার উপর বারংবার হামলাকারীদের গ্রেফতারের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed