Main Menu
শিরোনাম
শাবির ল্যাবে ১৭ জনের করোনা শনাক্ত         সিলেটে একদিনে নতুন শনাক্ত ২৪ জন, সুস্থ ৪১         কমলগঞ্জে হামলায় সাবেক মহিলা ইউপি সদস্য আহত         জামালগঞ্জ উপজেলায় নৌকার প্রার্থী ইকবাল বিজয়ী         হবিগঞ্জে অনির্দিষ্টকালের পরিবহণ ধর্মঘট প্রত্যাহার         শ্রীমঙ্গলের ভূনবীরে নৌকা, মির্জাপুরে ধানের বিজয়         নবীগঞ্জে ‘বিকাশ’ প্রতারককে আটক করল জনতা         সাদিপুরে নৌকার প্রার্থী কবির উদ্দিন বিজয়ী         সিলেটে একদিনে সুস্থ ৬৪ জন, শনাক্ত ২১         হবিগঞ্জে চলছে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট         মৌলভীবাজারে ভূয়া ডাক্তার দম্পতিকে জেল-জরিমানা         তামাবিল সড়কে দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৩        

ভারতে পলানোর চেষ্টা করছিল ‘ধর্ষক’ সাইফুর-অর্জুন

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে ধর্ষ‌ণের ঘটনায় পুলিশের হাতে ধরা পড়া ধর্ষক সাইফুর রহমান ও অর্জুন লস্কর সীমান্ত দিয়ে ভারতে পলানোর চেষ্টা করছিল। দু’জনই অপকর্মের পর সিলেট নগর ছেড়ে অবস্থান নিয়েছিল ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকায়। কিন্তু পুলিশের সতর্ক নজরদারির কারণে তাদের আর ভারতে পালানো সম্ভব হয়নি। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে পুলিশ সূত্র।

তাদের মধ্যে ধর্ষক সাইফুর রহমান ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ও বালাগঞ্জ উপজেলার চান্দাই গ্রামের তাহিদ মিয়ার ছেলে। আর অর্জুন লস্কর ৪ নম্বর আসামি ও জকিগঞ্জ উপজেলার আট গ্রামের কানু লস্করের ছেলে।

ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে রোববার সকালে ছাতক শহর সংলগ্ন নোয়ারাই ইউনিয়নের নোয়ারাই খেয়াঘাট এলাকা দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় ছাতক থানার এসআই হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সাইফুর রহমানকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর তাকে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সে দেশ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করছিল।

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন বলেন, রোববার সকালে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার বহরা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী দূলর্ভপুর গ্রাম থেকে অর্জুন লস্করকে গ্রেফতার করে সিলেট জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতারের পর তাকে সিলেট নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, দক্ষিণ সুরমার নবদম্পতি শুক্রবার বিকেলে প্রাইভেটকারে যোগে এমসি কলেজে বেড়াতে যান। বিকেলে এমসি কলেজের ছাত্রলীগের ছয়জন নেতাকর্মী স্বামী-স্ত্রীকে ধরে ছাত্রাবাসে নিয়ে প্রথমে মারধর করেন। পরে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে তারা। ছাত্রলীগ নেতাদের প্রত্যেকেই ছাত্রাবাসে থাকেন। তারা নগরের টিলাগড় কেন্দ্রীক আওয়ামী লীগের এক নেতার অনুসারী।

এ ঘটনায় শনিবার ভোর রাতে ৬ জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে অভিযুক্ত করে নগরের শাহপরান থানায় এ মামলা (২১(৯)২০২০) দায়ের করেন ধর্ষিতার স্বামী। এজাহার নামীয় আসামিরা হলো- সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার চান্দাইপাড়া গ্রামের তাহিদ মিয়ার ছেলে এমসি কলেজের ৫ম ব্লক হোস্টেলের বাসিন্দা সাইফুর রহমান (২৮), সুনামগঞ্জ সদরের নিসর্গ-৫৭ বাসার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে মেজরটিলা দিপীকা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮), হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়ার শাহ মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে এমসি কলেজ হোস্টেল, ৭নং ব্লকের ২০৫ নং কক্ষের বাসিন্দা শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে বর্তমানে শাহপরান রাজপাড়া এলাকার বাসিন্দা অর্জুন লস্কর (২৫), সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর গ্রামের বাসিন্দা বর্তমানে এমসি ছাত্রাবাসে বসবাস রবিউল ইসলাম (২৫), কানাইঘাট উপজেলার গাছবাড়ি এলাকার মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫)।

এছাড়া অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করেন শাহপরান (র.) থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) মিল্টন সরকার। ছাত্রলীগ ক্যাডার সাইফুর রহমানকে আসামি করে মামলা (নং-২২(৯)২০২০) দায়ের করেন তিনি।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed