Main Menu

সিলেট থেকে পালানো ২ স্কুলছাত্রীকে ঢাকায় উদ্ধার

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: সিলেট নগরী থেকে পালিয়ে যাওয়া দুই স্কুল ছাত্রীকে রাজধানী ঢাকার তেজগাঁও থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) রাতে তেজগাঁও থানা পুলিশের সহযোগিতায় ওই ২ ছাত্রীকে উদ্ধার করে বুধবার সকালে তাদের অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।
এর আগে নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া দুই ছাত্রী গত সোমবার সকালে বিদ্যালয়ে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বেরিয়ে নিরুদ্দেশ হয়। বিদ্যালয় ছুটির পর বাসায় না আসায় সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখোজি করেও সন্ধান না পেয়ে উভয় ছাত্রীর অভিভাবক সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় ডায়রি (জিডি) করেন। বিষয়টি কোতোয়ালি থানার সহকারী পুলিশ কমিশনারকে অবহিত করা হলে তিনি নিজেই তদন্তে নামেন।

দুই ছাত্রীর মধ্যে ১জন বাসায় চিঠি লিখে চলে যায়। চিঠিতে তাদের পারিবারিকভাবে শাসনের বিষয়টি উল্লেখ করে। বাসা থেকে বলে যাবার কথা উল্লেখ করা ছিল এবং তারা দু’জন একসঙ্গে যাচ্ছে কাউকে চিন্তা না করতেও লিখে যায়।

যাবার সময় একজন ছাত্রী তার মোবাইল নিয়ে গেলেও তা বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। দুই দিন চেষ্টার পর মঙ্গলবার এক ছাত্রীর বন্ধুকে তারা ফোন দেয়। সেই বন্ধুকে খোঁজে বের করেন সহকারী পুুলিশ কমিশনার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী। তাকে এনে তার মোবাইল কললিস্ট বের করে জানা যায় ছাত্রীদ্বয় তেজগাঁও থানার তেজতুরী বাজার এলাকায় আছে। তারা বাড়ীতে আসার জন্য ৫টি শর্ত দেয়, তখন সহকারী পুুলিশ কমিশনার নিজেই উকিল রতন মজুমদার সেজে সব শর্ত পূরণ করার আশ্বাস দেন। ওইদিন রাত ৯টায় তারা চলে আসার কথা বললেও পরে সিদ্ধান্ত বদল করে। একপর্যায়ে পুলিশ কর্তা নির্মলেন্দু চক্রবর্তী নতুন ফাঁদ পেতে বিকাশে টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দেন। রাত ১০টার দিকে ১৪ হাজার টাকা বিকাশে পাঠানোর দাবি করে এবং বিকাশ নাম্বার দেয় দুই ছাত্রী। বিকাশ নাম্বার পেয়েই বিকাশের এজেন্ট’র ঠিকানা সংগ্রহ করে তাদের টাকা আনতে পাঠানো হয়। পূর্ব থেকেই তেজগাঁও থানার পুলিশকে বিকাশ এজেন্টের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বিকাশের টাকা আনতে এজেন্টের কাছে যাওয়া মাত্রই ছাত্রী দুইজনকে আটক করে তেজগাঁও থানা পুলিশ। রাতেই সহকারী পুুলিশ কমিশনার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী এর নির্দেশক্রমে এসআই (নিঃ) দেবাশীষের নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার ও মহিলা ফোর্স তেজগাঁও থানায় গিয়ে দুই ছাত্রীকে কোতোয়ালি থানায় নিয়া আসেন। বুধবার সকালে উদ্ধার হওয়া দুই ছাত্রীকে তাদের অভিভাবকের হাতে তুলে দেন সহকারী পুুলিশ কমিশনার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী।

0Shares





Related News

Comments are Closed