Main Menu

ভারতের পথে প্রধানমন্ত্রী

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: চার দিনের সফরে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে নয়াদিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী। খবর বাসসের

গত জানুয়ারিতে টানা তৃতীয় মেয়াদে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের পর এটি তার প্রথম ভারত সফর।

ভারত সফরের প্রথম দু’দিন ৩ ও ৪ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিল্লিতে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের আয়োজনে ‘ইন্ডিয়ান ইকোনমিক সামিটে’ অংশ নেবেন।

সম্মেলনের প্রথম দিন প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ১০০টি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের ফোরাম ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস কাউন্সিলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপে অংশ নেবেন।

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক সহযোগিতা অধিকতর বৃদ্ধির বিষয়ে অন্য অতিথিদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সিঙ্গাপুরের উপপ্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী হেং সুই কিটসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা অংশ নেবেন।

শনিবার দিল্লিতে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক শুরু হবে। বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের নানা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে।

বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে ১১টি বিষয়ে আলোচনার কথা রয়েছে। এগুলো হচ্ছে- সীমান্তে হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা ও চোরাচালান বন্ধের বিষয়ে সহযোগিতা বৃদ্ধি, উভয় দেশের মধ্যে জনযোগাযোগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্নমুখী উদ্যোগ গ্রহণ এবং বাংলাদেশের নাগরিকদের ভারতীয় ভিসা থাকা সাপেক্ষে আরও অবাধ যাতায়াতের ব্যবস্থা গ্রহণ, সন্ত্রাসবাদ রোধ এবং আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার লক্ষ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি, সার্বিক বাণিজ্যিক ও আর্থিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, বাংলাদেশের রফতানি পণ্যের ওপর আরোপিত অ্যান্টিডাম্পিং ও অ্যান্টিসারকামভেশন শুল্ক প্রত্যাহার, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নৌ ও সমুদ্রপথে যোগাযোগ বৃদ্ধি, ‘বিবিআইএন এমভিএ’ চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ, গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা, উন্নয়ন ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতা বৃদ্ধি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর ও বাংলাদেশ-ভারত কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনের বিষয়ে যৌথ উদ্যোগ গ্রহণ এবং রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের বিষয়ে ভারতের সহযোগিতা।

সফরকালে শনিবার প্রধানমন্ত্রী ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এ দিন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকরও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

সফরের চতুর্থ দিন ৬ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতীয় কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এ দিনই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকায় ফিরবেন।

0Shares





Related News

Comments are Closed