Main Menu

জৈন্তাপুরে নদী পথে নৌকা দিয়ে শ্রমিকদের ব্যতিক্রমী অবরোধ

মো. রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার বৃহত্তম নদী সারী ৷ এ নদী হতে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু পাথর উত্তোলন বন্ধ, বোল্ড গেইট দিয়ে বালু পাথর পরিবহন বন্ধ, নির্দিষ্ট জায়গা হতে সরকারী রয়েল্ট্রি আদায়ের দাবীতে নৌকা দিয়ে নদী পথ বন্ধ করে অবরোধ পালন করেছে বালু শ্রমিকরা।

অবরোধ পালনকারী সারী নদী নৌকা শ্রমিকের সভাপতি আমির আলীর সহ সংগঠনের নেতৃবন্দদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, সম্প্রতি সারী নদীর তৃতীয় অংশের মামলা ভূক্ত এরিয়া ছাড়া বাকী দাগ সমুহ ইজারা প্রদান করে সরকার ৷ কিন্তু উল্লেখিত দাগ সমুহে বালু পাথর না থাকায় মামলা ভূক্ত দাগ হতে অবৈধ ভাবে স্থানীয় কিছু সংখ্যক ব্যক্তি ও স্থানীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সহায়তায় অবৈধ ভাবে যান্ত্রিক ড্রেজার (বোমা মেশিন) মেশিন ব্যবহার এবং বোল্টগেট নৌকা ব্যবহার করে বালু পাথর পরিবহন করা এবং স্থানীয় নৌকা শ্রমিকদের নিকট হতে অবৈধ ভাবে চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে ৩০ আগষ্ট মঙ্গলবার সকাল ১০টা হতে সারী নদীর ইন্দারজু এলাকায় নৌকা বন্ধন করে শ্রমিকরা নদী পথ অবরোধ করে প্রতিবাদ জানায় ৷

এরআগে ২৯ আগষ্ট সোমবার বিক্ষোভ মিছিল করে জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয় ঘেরাও করে ৷ দ্রুত সমাধানের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে তারা স্মারকলিপি প্রদান করে ৷ অবিলম্বে সারী নদী হতে ড্রেজার নামের (যান্ত্রীক বোমা মেশিন) মেশিন অপসারণ, বোল্ড গেইট নৌকায় মালামাল পরিবহন বন্ধ এবং সরকারী রয়েল্ট্রী নির্দিষ্ট স্থান হতে আদায় এবং সারী নদীর মধ্যে হতে চাঁদাবাজী বন্ধের দাবীতে নদী পথ অবরোধ করেন শ্রমিকরা।

শ্রমিকরা আরও জানান, গতকাল সোমবার বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি দিয়েছি, আজ নদী পথ অবরোধ করেছি ৷ তারপরও যদি সমাধান না আসে ৩১ আগষ্ট বুধবার সকাল হতে সিলেট- তামাবিল মহাসড়কের সারীঘাট পয়েন্টে সড়ক অবরোধ কর্মসূচী ডাক দিয়েছেন তারা।

নৌকা শ্রমিকদের সভাপতি আমির আলী জানান শ্রমিকদের পেটে লাথি দিয়ে যান্ত্রীক বোমা মেশিন ব্যবহার করে এবং বোল্ট গেইট ব্যবহার করে সারী নদীতে অবৈধ কার্যক্রম চলতে দেওয়া হবে না ৷ প্রয়োজনে আমাদের শরীরের রক্ত দিয়ে হলেও বাঁধা দিয়ে দাবী আদায় করব। আপনারা আমাদের দাবী মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছে তুলে ধরুন ৷ আমরা যান্ত্রীক পদ্ধতীতে নয় মেনুয়েল ভাবে কর্ম করে বেঁচে থাকতে চাই ৷

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ বলেন, জৈন্তাপুর উপজেলার সাধারণ খেটে খাওয়া শ্রমিকদের কর্মহীন করতে যারা অবৈধ যান্ত্রিক মেশিন ব্যবহার করে শ্রমিকদের কর্মহীন করার পায়তারা করছে অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান প্রশাসনের কাছে ৷ অন্যতায় ঘুমন্ত ও শান্তি প্রিয় জৈন্তাপুরের শ্রমিকরা ক্ষেপে উঠলে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা বন্ধ করা কঠিন হয়ে উঠবে ৷ শ্রমিকদের দাবী যৌতিক ও যুক্তিসংগত দাবি বলে তিনি মনে করেন ৷ অবিলম্বে তাদের দাবী বাস্তবায়নের জন্য উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ৷ আমি শ্রমিকদের ন্যায দাবী সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি মহোদয়কে অবহিত করেছি।

জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল বশিরুল ইসলাম জানান, গতকাল সোবার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে আমার দপ্তরে এসেছিল ৷ আমি তাদের প্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেছি এবং উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়েছি ৷ উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা আসলে দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে।

0Shares





Related News

Comments are Closed