Main Menu
শিরোনাম
মামুনুলকে নিয়ে পোস্ট, ৬ মাস পর কারামুক্ত ঝুমন         করোনা টিকার সাথে খাবার দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান         ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং সংগ্রাম পরিষদের স্মারকলিপি পেশ         সিলেটে মৃত্যুহীন দিনে ২৬ জনের করোনা শনাক্ত         সিকৃবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপিত         বিশ্বনাথে পূজা উদযাপন পরিষদের প্রতিবাদ সভা         নাজিরবাজার মাদরাসায় দারসে বুখারি ও দোয়া মাহফিল মঙ্গলবার         কানাইঘাটে ৫ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ         মাধবপুরে সড়কদূর্ঘটনায় নিহত বেড়ে ৪         কমলগঞ্জে সবজি ক্ষেত থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার         বিশ্বনাথে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী নিখোঁজ         বড়লেখায় পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু        

বুয়েটের অক্সিজেট, সীমিত ব্যবহারের অনুমোদন

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: করোনায় আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেন চাহিদা মেটাতে ব্যয়বহুল হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলার বিকল্প হিসেবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উদ্ভাবিত ‘অক্সিজেট’ যন্ত্রটি সীমিত আকারে উৎপাদন ও ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। আপাতত ২০০ ইউনিট উৎপাদনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৯ জুলাই) রাতে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মুখপাত্র মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ও ডিভাইসটির উদ্ভাবক বুয়েট শিক্ষক ড. তওফিক হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যন্ত্রটি এরই মধ্যে বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদের (বিএমআরসি) অনুমোদন নিয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের দুটি ধাপ সফলভাবে সম্পন্ন করেছে। কিন্তু ওষুধ প্রশাসনের অনুমোদন ছাড়া ডিভাইসটি উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছিল না।

তওফিক হাসান বলেন, ‘আমরা আজকেই স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে একটি চিঠি পেয়েছি যে ওনারা আমাদের ২০০টি অক্সিজেট সি ফাইভ ডিভাইস তৈরি করার অনুমোদন দিয়েছেন। আমরা আশা করছি দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ডিভাইসটি কিছু মানুষের কাজে লাগবে। যাদের বিশেষ করে অক্সিজেনের প্রয়োজন বেশি ও আইসিইউর সল্পতা রয়েছে। এই ডিভাইসটি ভালোভাবে পারফর্ম করার পরবর্তীতে আরও তৈরি করার অনুমোদন পাওয়া যাবে।’

তিনি বলেন, কোন ধরনের রোগীদের কোন অবস্থায় এটি দেয়া যাবে এমন কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে। এসব ডাটা দেখে পরবর্তীতে আরো অনুমোদন দেয়া হবে কি না সে সিদ্ধান্ত নেবে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর ‘

বুয়েটের বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. তওফিক হাসানের নেতৃত্বে ‘অক্সিজেট’ নামের যে ডিভাইসটি তৈরি করা হয়েছে সেটি দিয়ে হাসপাতালের সাধারণ বেডেই ৬০ লিটার পর্যন্ত হাই ফ্লো অক্সিজেন দেয়া সম্ভব বলে তারা জানান।

বিষয়টি নিয়ে ফলাও করে সংবাদ প্রচারের পর উচ্চ আদালতের নজরে আনেন একজন আইনজীবী। পরে বিচারক ‘অক্সিজেট’ নামের ডিভাইসের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনার পরামর্শ দেন।

একটি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলার জন্য খরচ যেখানে ২ থেকে ৫ লাখ টাকা, সেখানে বুয়েটের আবিষ্কৃত যন্ত্রটির উৎপাদন খরচ পড়বে মাত্র ২০-২৫ হাজার টাকা।

0Shares





Related News

Comments are Closed