Main Menu
শিরোনাম
সিলেটে দুই কমিউনিটি সেন্টারকে জরিমানা         কমলগঞ্জে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় ইমাম আটক         সাংবাদিক মারুফ হাসানের পিতার ইন্তেকাল         বিশ্বনাথে খাল-বিলে অবাধে পোনা নিধন         সিলেট-৩ আসনকে নান্দনিক করতে সবাইকে নিয়ে কাজ করব : হাবিব         দক্ষিণ সুরমায় অসুস্থ বৃদ্ধের জায়গা আত্মসাতের চেষ্টা         কমলগঞ্জে ফ্যানের আঘাতে চা শ্রমিকের মৃত্যু, শ্রমিকদের কর্মবিরতি         সিলেটে আইনজীবী আনোয়ারের লাশ কবর থেকে উত্তোলন         সিলেটে করোনায় আরো৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬৮         গোয়াইনঘাটে একই পরিবারের ৩জনকে গলাকেটে হত্যা         শ্রীমঙ্গলের সীমান্ত এলাকা থেকে ভারতীয় নারী আটক         সিলেটে অটোরিকশায় যুবতিকে ‘গণধর্ষণ’, গ্রেপ্তার ২        

সিআইইউতে ভর্তিতে ইউজিসির ‘সতর্কতা’

বৈশাখী নিউজ ২৪ ডটকম: মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভর্তির ক্ষেত্রে আবারও সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

সিলেটের বেসরকারি এই বিশ্ববিদ্যালয়টি দীর্ঘদিন ধরেই সঙ্কটে রয়েছে। ট্রাস্ট্রি বোর্ডের দ্বন্দ্ব নিয়ে মামলাও হয়েছে। ব্যবস্থাপনা নিয়েও রয়েছে দুর্বলতা। ফলে একাধিকবার এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে সতর্ককতা জারি করে ইউজিসি। তবে কিছুতেই সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারছে না নগরের কানিশাইল এলাকায় নিজস্ব ভূমিতে প্রতিষ্ঠিত এ বিশ্ববিদ্যালয়টি।

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ছাড়াও দেশের ১৬টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে এই সতর্ককতা জারি করেছে ইউজিসি।

অননুমোদিত ভবন/ক্যাম্পাসে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা, অননুমোদিত প্রোগ্রাম, মামলা-মোকদ্দমাসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা আছে, এমন ১৬টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা প্রকাশ (আপডেট) করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। ভর্তি মৌসুম সামনে রেখে সম্প্রতি এই হালনাগাদ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শিক্ষার্থী, অভিভাবক বা জনসাধারণের জ্ঞাতার্থে ইউজিসির ওয়েবসাইটে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের নামের পাশে লাল তারকা চিহ্ন দেওয়া হয়েছে।

ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, উচ্চশিক্ষায় ভর্তির এই সময়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সতর্ক করতেই সম্প্রতি ওয়েবসাইটের তালিকাটি হালনাগাদ করা হয়েছে। সেখানে যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ের নামের পাশে লাল তারকা চিহ্ন দেওয়া হয়েছে, সেগুলোর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ রয়েছে। তাই শিক্ষার্থীদের ভর্তির আগে বিশ্ববিদ্যালয় সর্ম্পকে খোঁজখবর নিয়ে ভর্তি হতে হবে। পরে কোনো সমস্যায় পড়লে এর দায়ভার নেবে না ইউজিসি। দেশে বর্তমানে ১০৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন রয়েছে।

এবিষয়ে মঙ্গলবার (৮ জুন) ইউজিসির (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়) সদস্য অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ বলেন, সম্প্রতি সংসদে শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি ৮টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অবৈধ ভবনে কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং দুটিতে অবৈধ ক্যাম্পাস থাকার কথা বলেছেন।

৮ বিশ্ববিদ্যালয়ের অননুমোদিত ভবন/ক্যাম্পাসে শিক্ষাকার্যক্রম

ইউজিসির দেওয়া তালিকা অনুযায়ী, অবৈধ ভবনে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো- ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া, স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ, সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটি ও নর্দান ইউনিভার্সিটি।

৩ বিশ্ববিদ্যালয়ে অননুমোদিত প্রোগ্রাম

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় একটি প্রোগ্রামের অনুমোদন নিয়ে সেই প্রোগ্রামের অন্তরালে আরও ১০টি প্রোগ্রাম পরিচালনা করছে। যা সম্পূর্ণভাবে অবৈধ বলে জানিয়েছে ইউজিসি। অননুমোদিত প্রোগ্রামগুলো হলো বিবিএ ইন জেনারেল, বিবিএ ইন ফিন্যান্স, বিবিএ ইন এইচআরএম, বিবিএ ইন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস, বিবিএ ইন মার্কেটিং, বিবিএ ইন ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম, বিবিএ ইন অ্যাকাউন্টিং, বিবিএ ইন ইকোনমিক্স, বিবিএ ইন এন্টারপ্রেনিউরশিপ এবং বিবিএ ইন সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট।

গণবিশ্ববিদ্যালয় অননুমোদিতভাবে বিবিএ, পরিবেশ বিজ্ঞান, এমবিবিএস, বিডিএস এবং স্কাইকোথেরাপি প্রোগ্রামগুলো হাইকোর্ট ডিভিশন ২০১৯ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে পরবর্তী ৬ মাসের স্থগিতাদেশ দেয়। এ স্থগিতাদেশের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও বিশ্ববিদ্যালয়টি এসব প্রোগ্রামে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

এছাড়া চট্টগ্রামের আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স ইন কুরআনিক সায়েন্স অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ প্রোগ্রামটি অননুমোদিতভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে।

৩ বিশ্ববিদ্যালয়ে মালিকানা দ্বন্দ্ব

ব্রিটেনিয়া ইউনিভার্সিটি, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও কুইন্স ইউনিভার্সিটিতে মালিকানা দ্বন্দ্ব রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদিত কোনো ঠিকানা নেই ইবাইসে

ইবাইস ইউনিভার্সিটির দুইজন মালিক একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা করছে। এরমধ্যে একটি গ্রুপ ধানমন্ডি অন্য গ্রুপ উত্তরা শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা করছে। এক সময় কোর্টের রায়ে ধানমন্ডি বাড়ি নম্বর-২১/এ, সড়ক নম্বর-১৬ (পুরাতন-২৭), ধানমন্ডি, ঢাকা-১২০৯ ঠিকানাটি হাইকোর্ট ডিভিশনের এক বছরের স্থগিতাদেশ থাকায় কমিশনের ওয়েব সাইটে আপলোড করা হয়েছিল। বর্তমানে ওই স্থগিতাদেশের কার্যকারিতা ভ্যাকেট হয়ে যাওয়ায় ইবাইস ইউনিভার্সিটির ওই ঠিকানা কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে বাতিল করা হলো। তাই বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদিত কোনো ঠিকানা নেই।

দি ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লায় শিক্ষাকার্যক্রম পুনরায় শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়নি

মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের Civil Petition for Leave to Appeal No. 1967/2018 (out of Writ petition no. 4263/2018) এর আদেশ বলে দি ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লার ঠিকানা এবং প্রোগ্রামসমূহ ইউজিসির ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়েছে। তবে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ অনুযায়ী পরবর্তী নির্দেশনা চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। কমিশন থেকে শিক্ষাকার্যক্রম পুনরায় শুরুর অনুমতি অদ্যাবধি দেওয়া হয়নি।

শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনার জন্য অনুমতি পায়নি ৬ বিশ্ববিদ্যালয়

সরকার কর্তৃক নতুন করে অনুমোদন দেওয়া ৬টি বিশ্ববিদ্যালয় এখনো শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনার জন্য অনুমতি পায়নি। এসবের মধ্যে রয়েছে-রূপায়ন এ কে এম শামসুজ্জাহা বিশ্ববিদ্যালয়, আহসানিয়া মিশন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খান বাহাদুর আহছানউল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, শাহ মখদুম ম্যানেজমেন্ট ইউনিভার্সিটি, মাইক্রোল্যান্ড ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি এবং আর টি এম আল কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি।

0Shares





Related News

Comments are Closed