Main Menu
শিরোনাম
সিলেটে কলহের জেরে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামী আটক         সিলেটে ঘন ঘন দুর্ঘটনার প্রতিবাদে তিন উপজেলাবাসীর অবস্থান         ভারতে কারাভোগের পর দেশে ফিরলেন ৬ বাংলাদেশি         সিলেটে আরো ১৩ জনের করোনা শনাক্ত, সুস্থ ২০         সুনামগঞ্জে উদ্বোধনের আগেই ভেঙে পড়লো সেতু!         হবিগঞ্জে আ.লীগ প্রার্থী সেলিম বিজয়ী         সিলেটে দুর্ঘটনাস্থলে কাফনের কাপড় পড়ে অবরোধ, ৫ দাবি         সিলেটে দুই বাসের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮         সিলেটে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৭         মাধবপুরে গার্মেন্টসকর্মীকে ধর্ষণ         শপথ নিলেন গোলাপগঞ্জ পৌর মেয়রসহ নির্বাচিত কাউন্সিলররা         রাজনগরে ৪০০ আ.লীগ নেতাকর্মীর নামে মামলা        

সবচেয়ে হালকা গ্রহের সন্ধান! (ভিডিও)

প্রযুক্তি ডেস্ক: সৌরজগতের বাইরে একটি গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। যার আকৃতি বৃহস্পতির চেয়ে বড় কিন্তু ১০ গুণ বেশি হালকা এবং ফাঁপা।

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা এর ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, ডাব্লিউএএসপি-১০৭বি নামে পরিচিত এই গ্রহটির ডাকনাম রাখা হয়েছে ‘সুপার পাফ’ (ব্যাপক ফাঁপা) বা ‘কটন ক্যান্ডি’ (হাওয়াই-মিঠাই)। এখন পর্যন্ত এটিই বিজ্ঞানীদের জানা সবচেয়ে হালকা এক্সোপ্ল্যানেট।

সৌরজগতের বাইরের গ্রহকে বলা হয় এক্সোপ্ল্যানেট। পৃথিবী থেকে ডাব্লিউএএসপি-১০৭বি এক্সোপ্ল্যানেটের দূরত্ব ২১১ আলোকবর্ষ।

আমাদের মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সিতেই এর অবস্থান। একটি বামন নক্ষত্রকে এটি প্রদক্ষিণ করে চলেছে এবং ওই হোস্ট নক্ষত্রটির খুব কাছাকাছি অবস্থান করায় গ্রহটির তাপমাত্রাও বেশি। কক্ষপথ ঘুরতে সময় নেয় মাত্র ৫.৭ দিন।

ব্যতিক্রমী এই গ্রহের দেখা বিজ্ঞানীরা পেয়েছিলেন আরো আগেই। ২০১৭ সালে। সেসময় জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা সঙ্গে সঙ্গেই এটিকে কম ঘনত্বের গ্রহের স্বীকৃতি দিয়েছিলেন।

তবে মন্ট্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা এবার গ্রহটির আকৃতি এবং ভর পরিমাপ করতে সক্ষম হয়েছেন। গবেষণায় দেখা গেছে, ডাব্লিউএএসপি-১০৭বি এক্সোপ্ল্যানেটটি সৌরজগতের বৃহত্তম বৃহস্পতি গ্রহের চেয়ে সামান্য বড় হলেও, এর ভর ১০ গুণ কম। ঘনত্ব প্রতি ঘন সেন্টিমিটারে মাত্র ০.১৩ গ্রাম।

নতুন গবেষণাটি মন্ট্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ ক্যারোলিন পাইওলেটের নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াইয়ে অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত কেক অবজারভেটরির মাধ্যমে ৪ বছর ধরে গ্রহটি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে আকৃতি ও ভর নির্ণয় করা হয়। নতুন এই আবিষ্কার বিজ্ঞানী মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

ক্যারোলিন পাইওলেট বলেন, এক্সোপ্ল্যানেটটি নিয়ে আমাদের মনে অনেক প্রশ্ন ছিল। এতে কম ঘনত্বের কোনো গ্রহ কীভাবে গঠিত হতে পারে? হোস্ট নক্ষত্রের এত কাছাকাছি অবস্থান করার পরও গ্যাসীয় গ্রহটি কীভাবে নিজেকে রক্ষা করতে পেরেছে? এসব প্রশ্নই আমাদেরকে গ্রহটির গঠন নিয়ে বিস্তারিত গবেষণায় অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।

গবেষকদের মতে, সৌরজগতের বাইরের বৃহত্তম গ্রহগুলো কীভাবে গঠিত হয় এবং বেড়ে ওঠে সে সম্পর্কে এতদিনের ধারণায় বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে নতুন এই আবিষ্কার।

0Shares





Related News

Comments are Closed