Main Menu
শিরোনাম
বিশ্বনাথে ঐতিহ্যবাহী ‘পলো বাওয়া’ উৎসব পালিত         জৈন্তাপুরে এসএসসি-২০০২ ব্যাচের শীতবস্ত্র বিতরণ         কুলাউড়া পৌরসভায় আ.লীগ প্রার্থী সিপারের জয়         জগন্নাথপুরে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আক্তার জয়ী         কমলগঞ্জে দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র হলেন জুয়েল আহমদ         সুনামগঞ্জে দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র হলেন নাদের বখত         নবীগঞ্জে দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র হলেন বিএনপির প্রার্থী         মাধবপুরে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর জয়         ছাতকে চতুর্থ মেয়াদে মেয়র হলেন কালাম চৌধুরী         এলাহাবাদ আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষের অপসারণ দাবি         সিলেটে আরও ১৫ করোনা রোগী শনাক্ত, সুস্থ ২১         এসএসসি ২০০৩ ব্যাচের পূর্মিলনী অনুষ্টিত        

সারাক্ষণ মোবাইলে চোখ, বাড়ছে মারাত্মক রোগ!

লাইফস্টাইল ডেস্ক: হালে যত প্রযুক্তি আসছে, তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় নাম স্মার্ট মোবাইল ফোন। ফ্যাশন হিসেবেও কম যায়না। সারাক্ষণ মোবাইল স্ক্রিনে চোখ রাখা নতুন প্রজন্মের জন্য ফ্যাশন। এই মোবাইল পেছনের সব প্রযুক্তিকে শেষ করেছে! রেডিও- ঘরি এগুলোকে ঝেঁটিয়ে বিদায় দিয়েছে। এবার লাগছে আপনার পিছু। এটির অতিরিক্ত ব্যবহারে ক্ষতি হচ্ছে চোখ ও শরীরের। অতিরিক্ত চাপ পড়ছে মস্তিস্কে।

তবে আপনি চাইলে এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

১. দিনে বেশ কয়েকবার চোখে ঠান্ডা পানির ঝাপটা দিন। বাইরে থেকে এসে অথবা কম্পিউটারে বসে একটানা কাজের করার ফাঁকে চোখে জলের ঝাপটা দিন। এই কাজটাকে অভ্যেসে বদলে ফেলুন।

২. বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ‘নাইট মোড’ বা ‘ওয়ার্ম মোড’ থাকে। এই অপশনটি অন করলেই ফোনের স্ক্রিনের রঙ বদলে যায়। এর ফলে স্ক্রিন থেকে বের হওয়া ক্ষতিকর নীল রশ্মির পরিমাণ কম থাকে। এর ফলে আপনার চোখ কিছুটা হলেও ক্ষতিকর রশ্মির হাত থেকে রেহাই পাবে।

৩. বিছানায় শুয়ে মোবাইল দেখার অভ্যেস থাকলে এখুনি বদলে ফেলুন। কারণ, শুয়ে মোবাইল দেখলে চোখের সঙ্গে দূরত্ব সমান থাকে না। চোখের পেশিগুলির উপরেও চাপ পড়ে। বেশিদিন এই অভ্যাস বজায় রাখলে প্রভাব পড়ে চোখে। চোখের দৃষ্টিশক্তি ঝাপসা হতে পারে। হতে পারে মাথা ব্যাথাও। তাই মোবাইল দেখুন বসে। শুয়ে শুয়ে একেবারেই নয়।

৪. বাসে ট্রেনে যাতায়াত করার সময় যতটা সম্ভব চোখ মোবাইল থেকে দূরে রাখুন। কারণ এই সময় বাসের ঝাঁকুনির সময় মোবাইল দেখলে চোখের উপর প্রভাব পড়তে পারে। চেষ্টা করুন খুব প্রয়োজন না হলে এই সময়টুকু মোবাইল না দেখার। এতে চোখের ক্ষতি অনেকটাই কমবে।

0Shares





Comments are Closed