Main Menu

১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সাধারণ ছুটি বাড়ল। আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। এছাড়া ১০ ও ১১ এপ্রিল সাপ্তাহিক বন্ধ থাকায় ছুটি থাকবে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত।

বুধবার (১ এপ্রিল) দুপুরে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কাজী মোহমাম্মদ সাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ১০ ও ১১ এপ্রিল সাপ্তাহিক ছুটিও এর সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে। অতএব সব মিলিয়ে সাধারণ ছুটি থাকছে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, জরুরি পরিসেবায় বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন, ইন্টারনেট ইত্যাদি সার্ভিসের ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটি প্রযোজ্য হবে না। কৃষিপণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্পপণ্য, চিকিৎসা সামগ্রী, জরুরি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন, কাঁচাবাজার, খাবার দোকান, ওষুধের দোকান ও হাসপাতাল এই ছুটির বাইরে থাকবে।

জরুরি প্রয়োজনে অফিস খোলা রাখা যাবে। প্রয়োজনে এই সাধারণ ছুটিতে ওষুধশিল্প, উৎপাদন, ও রফতানিমুখী শিল্প কারখানা চালু রাখতে পারবে। মানুষের জীবন জীবিকার স্বার্থে রিকশা-ভ্যানসহ যানবাহন, ট্রেন-বাস পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

এর আগে সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ ছুটি বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। এবার আসন্ন পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান না করার কথাও বলেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ছুটি দিয়েছিলাম, হয়তো আমাদের আরো কয়েকদিন বাড়াতে হতে পারে। কারণ অনেকে গ্রামে চলে গেছেন সেখানে কোনো রকম যেন এ রোগের প্রার্দুভাব দেখা না দেয় সে সময়টা হিসেব করে- আমরা ১০/১২ দিনের ছুটি দিয়েছিলাম। এটা ১৪ দিন করতে হবে। … ৯ তারিখ পর্যন্ত হতে পারে। ছুটিটা সীমিত আকারে আমাদের একটু বাড়াতে হবে।’

উল্লেখ্য, গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের ছুটির সঙ্গে আরও ৯ দিন যুক্ত করে মোট ১০ দিনের টানা ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এছাড়াও দেশের সব স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে গণপরিবহন, দোকানপাট, শপিংমলসহ অনেক কিছু। মূল কাগজে-কলমে না হলেও অঘোষিত ভাবে লকডাউনই চলছে দেশে।

0Shares





Related News

Comments are Closed