Main Menu
শিরোনাম
হবিগঞ্জে ভেজাল পণ্য জব্দ, জেল-জরিমানা         বিয়ানীবাজারে পিস্তলসহ যুবক গ্রেফতার         শাবির ল্যাবে আরও ৩৯ জনের করোনা শনাক্ত         জকিগঞ্জে ১১০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩         নবীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় বৃদ্ধ নিহত, আহত ৩০         বালাগঞ্জে কনু মিয়ার খুনীদের গ্রেফতার দাবি         বিশ্বনাথে আত্মহত্যার প্ররোচনাকারীদের গ্রেপ্তার দাবি         সিলেটে শিশু অপহরনকারী চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার         বিশ্বনাথে কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩         সিলেট বিভাগে আক্রান্ত বেড়ে ৬২৮৪, মৃত্যু ১১০         জাফলং গ্রীণপার্ক থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার         সিলেটের দুই ল্যাবে ১৫০ জনের করোনা শনাক্ত        

সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ শাহজাহান বলেছেন, দেশ ও জাতির চরম ক্রান্তিকাল চলছে। ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী তাদের ফ্যাসীবাদী শাসন পাকাপোক্ত করতে জনগণের প্রতি জুলুম চালাচ্ছে। নিত্যপ্রয়োনীয় দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। দেশে আইনের শাসন বলে কিছু নেই। সর্বত্র চলছে খুন, হত্যা,ধর্ষন, শিশু ধর্ষন ও লুটপাটের মহোৎসব। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে দেশে কোন সরকার নেই। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলন বাধাগ্রস্থ করতেই ষড়যন্ত্রমুলক মামলার ফরমায়েসী রায়ে গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কিন্তু সরকার তাঁকে জামিন না দিয়ে ক্রমাগত মৃত্যূর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। কোন স্বৈরাচারী শাসকের শেষ পরিনতি ভাল হয়নি। আওয়ামী বাকশালীদেরকেও চরম মূল্য দিতে হবে। মনে রাখতে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও গণতন্ত্রের মুক্তি একই সূত্রে গাথা। অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হলে প্রথমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। আর কোন টালবাহানা না করে তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে দেশপ্রেমিক জনতাকে সাথে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

শনিবার কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর অংশ হিসেবে ষড়যন্ত্রমুলক মামলার ফরামেয়েসী রায়ে কারান্তরীণ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

সাবেক মন্ত্রী শাহজাহান আরো বলেন, আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন বিএনপির মুখ ছাড়া নাকি সবকিছু তাদের নিয়ন্ত্রণে। সুতরাং দেশবাসীর বুঝতে বাকি নাই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিও তাদের নিয়ন্ত্রণে। মুল কথা হচ্ছে বিরোধী রাজনৈতিক শক্তি ছাড়া কোন কিছুই সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেই। কারণ ঔষুধ থেকে শুরু করে সকল প্রকার নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি প্রমাণ করে বাজার ব্যবস্থা সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেই। সবকিছু লুটেরাদের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। আমাদের নেত্রীর হাত পা অবশ হয়ে যাচ্ছে কিন্তু তাঁর মনোবল এখনো অটুট আছে। তাই পদ-পদবীর জন্য আমাদের নেতাকর্মীদের মনোবল ভেঙ্গে গেলে চলবেনা। ফ্যাসীবাদি সরকারের সকল নিয়ন্ত্রণ ভেঙ্গে দিতে সর্বস্তরের জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধভাবে ময়দানে ঝাপিঁয়ে পড়তে হবে। দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আমরা মুক্ত করে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করবোই।

সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদারের সভাপতিত্বে ও মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকীর পরিচালনায় ঐতিহাসিক রেজিষ্ঠারী মাঠে অনুষ্ঠিত সমাবেশে জেলা ও মহানগর বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আলহাজ্ব এম. এ হক, ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন মিলন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বিএনপির আহŸায়ক কমিটির ১নং সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী শামীম।

জেলা ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা নুরুল হকের পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে সুচীত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য এডভোকেট আব্দুল গাফফার, মহানগর সহ-সভাপতি এডভোকেট হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য আলী আহমদ, মহানগর সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির শাহীন, জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী, মহানগর সহ-সভাপতি কাউন্সিলার ফরহাদ চৌধুরী শামীম, জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী, সিলেট মহানগর যুবদলের আহবায়ক নজিবুর রহমান নজিব, জেলা যুবদলের আহবায়ক সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, মহানগর শ্রমিক দল নেতা ইউনুস মিয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক আরিফ ইকবাল নেহাল, জেলা মহিলা দলের সভাপতি সালেহা কবির শেপি, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান ও জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন নাদিম প্রমূখ।

সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দের মধ্যে থেকে উপস্থিত ছিলেন, আশিক উদ্দিন চৌধুরী, আব্দুল মান্নান, ফখরুল ইসলাম ফারুক, শাহজামাল নুরুল হুদা, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, এডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন লস্কর, আব্দুল আহাদ খান জামাল, মাহবুবুল হক চৌধুরী, আবুল কাশেম, শামীম আহমদ ও আহমেদুর রহমান চৌধুরী মিলু।

সিলেট মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দের মধ্যে থেকে উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি এডভোকেট ফয়জুর রহমান জাহেদ, জিয়াউল গণি আরেফিন জিল্লুর, কাউন্সিলার রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, ডা: নাজমুল ইসলাম, ফাত্তাহ বকশী ও আমির হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আতিকুর রহমান সাবু, আব্দুল আজিজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতাহ সিদ্দিকী, মুকুল আহমদ মোর্শেদ, দফতর সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম আলো প্রমূখ।

0Shares





Related News

Comments are Closed