Main Menu

ওসমানীনগরে ৪৭ বছর পর মসজিদের জায়গা উদ্ধার

আবুল কালাম আজাদ, ওসমানীনগর: সিলেটের ওসমানীনগরে দীর্ঘ ৪৭ বছর পর ব্যক্তির অধীন থেকে মসজিদের জায়গা দখল মুক্ত করলেন কমিটির সদস্য ও মুসল্লিরা।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের কাগজপুর জামে মসজিদের ২১০ শতক জমি থেকে বোরো ধান কাটার মাধ্যমে তা দখল মুক্ত করেন। তারা এ দিনকে ধান কাটা দিবস হিসেবে আখ্যায়িতও করেন।

জানা যায়, ১৯৭৬ সালে কাগজপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের স্ত্রী মরজান বিবি ‘কাগজপুর জামে মসজিদে’র নামে ২১০ শতক জায়গা ওয়াকফ করে দেন। তৎকালীন সময়ে মসজিদের মোতাওয়াল্লীর দায়িত্বে ছিলেন একই গ্রামের মৃত আছদ্দর আলী। তিনি ওয়াকফ কৃত জায়গা নিজের দখলে নিয়ে নেন। গ্রামবাসী এই নিয়ে তার সাথে বহুবার যোগাযোগ করলে তিনি এর কোন সন্তুষ্টজনক জবাব কখনো দেননি।

তার মৃত্যুর পর সেই জায়গা ভোগদখল করেন তার ছেলে মোস্তফা কামাল এবং তার পরিবারের অন্যান্যরা। এ নিয়ে তাদের সাথে একাধিক বার যোগাযোগ করেন মসজিদ কমিটির সদস্যরা। কিন্তু তিনি কারো কথার তোয়াক্কা না করে নিজের জমি বলে প্রতি বছর ধান কেটে নেন । অবশেষে মসজিদ কমিটি ও এলাকাবাসী জানতে পারেন জমির মালিক মসজিদ এবং যিনি জায়গাটি ওয়াকফ করে দিয়েছেন তার যথেষ্ট প্রমানও রয়েছে। তাই তারা কাগজপুর জামে মসজিদের ২১০ শতক জায়গা (৭ কিয়ার) দীর্ঘ ৪৭ বছর পর শনিবার (২৭ এপ্রিল) কাগজপুর জামে মসজিদের পক্ষের হয়ে জমি থেকে ধান কাটেন এবং জমি দখল মুক্ত করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সুহিন আহমদ এবং আক্তার হোসেন জানান, গ্রামের মানুষ একটি পরিবারের কাছে অসহায় হয়ে পড়েছিলো। তাই তারা দীর্ঘদিন মসজিদের জমি দখল ভোগ করেছে। মসজিদ আল্লাহর ঘর আর সেই মসজিদের মালিকানাধীন ভূমি উদ্ধারের জন্য এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে জমি দখল মুক্ত করেন। আর কেউ যাতে কখনো মসজিদের জায়গা দখল করতে না পারে সে ব্যাপারে আমারা সবাই সোচ্ছার আছি।

জমি দখল মুক্তকালে উপস্থিত ছিলেন মসজিদ কমিটির সভাপতি হাজী মোহাম্মদ আবরুছ আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক হাজী আক্তার হোসেন, যুক্তরাজ্যে প্রবাসী আকিকুর রহমান সিতু, কাগজপুর স্কুল কমিটির সভাপতি আব্দুল আহাদ, মসজিদ কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল হক , পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক সুহিন আহমদ, কোষাধক্ষ্য মিজান মিয়া, কমিটির সদস্য শাহিন মিয়া, আব্দুল মুমিন, আব্দাল মিয়া, হারুন খান, শাহাজাহান আহমদ প্রমুখ।

0Shares





Related News

Comments are Closed