Main Menu

রক্তশূন্যতা দূর করে ড্রাগন ফল

লাইফস্টাইল ডেস্ক: গণচীনের মানুষরা ড্রাগন ফলকে ড্রাগন মুক্তার বা আগুন ড্রাগন ফল বলে অভিহিত করে থাকে। ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডে এটি ড্রাগন স্ফটিক নামে পরিচিত। এই ফলটি একাধিক রঙের হয়ে থাকে তবু লাল রঙের ড্রাগন ফলই বেশি দেখা যায়। বিদেশি এই ফলটির স্বাস্থ্য উপকারিতা প্রচুর।

বর্তমানে বাংলাদেশেও ড্রাগন ফল চাষ হচ্ছে। ড্রাগন ফলে আছে ভিটামিন সি যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এমনকি কোষ্ঠকাঠিন্য ও রক্তশূন্যতা দূর করতেও এই ফলটি খুব কার্যকরী।

ড্রাগন ফলে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা দেহের কোষের ক্ষতি থেকে হওয়া রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার হৃদরোগ, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস এমনকি আর্থ্রাইটিসের মতো রোগ প্রতিরোধ করতে সহায়ক।

ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমানে ফাইবার এবং এটি পিচ্ছিলজাতীয় হওয়ায় দ্রুত হজমও হয়। ড্রাগন ফলের মধ্যে প্রিবায়োটিক থাকার কারণে দেহের পচনতন্ত্র ভালো রাখতে সাহায্য করে ও ডায়রিয়ায় সংক্রমণের ঝুঁকি কমায়। শুধু তাই নয় এই ফলে থাকা ভিটামিন সি এবং ক্যারোটিনয়েডগুলো শরীরের ইমিউন সিস্টেমকে বাড়িয়ে দেয় এবং রক্তকণিকাগুলোকে সংক্রমণ প্রতিরোধে সহায়তা করে।

অন্যদিকে শরীরের আয়রনের মাত্রা বৃদ্ধি করতেও অন্যতম একটি ফল হচ্ছে এই ড্রাগন। আয়রন দেহে অক্সিজেন পরিবহনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এক কাপ পরিমাণ ড্রাগন ফলে ১৮ শতাংশ ম্যাগনেসিয়াম থাকে। যা দেহের প্রতিটি কোষে উপস্থিত থেকে শরীরের ৬০০টিরও বেশি রাসায়নিক বিক্রিয়া যেমন পেশি সংকোচনে, হাড়ের গঠনে এবং ডিএনএ তৈরির প্রয়োজনীয় বিক্রিয়াগুলোতে অংশ নেয়।

এক কাপ পরিমাণ ড্রাগন ফল সকল ধরনের খাদ্যগুণের একটি উৎস। এর মধ্যকার উচ্চ ফাইবার দেহের দৈনিক চাহিদা পূরণেও ব্যাপকভাবে প্রভাব ফেলে।

0Shares





Related News

Comments are Closed