Main Menu
শিরোনাম
‘এক্সেস লাগেজ’ জটিলতায় সেই নারীর ফ্লাইট মিস : বিমান         দশ হাসপাতাল ঘুরে বিয়ানীবাজারে বৃদ্ধার মৃত্যু         ইনসাফ ওয়েলফেয়ারের বৃক্ষরোপন ও চারা বিতরণ         প্রবাসী জামিলা চৌধুরীর সাথে মাবাফা নেতৃবৃন্দের স্বাক্ষাৎ         সিলেটে আইসিইউ ও ১ হাজার শয্যা বাড়ানোর দাবি         জৈন্তাপুরে ওপার থেকে নদীপথে আসছে টমেটোর চালান         ওসমানীতে যাত্রী হয়রানি, দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা         স্ত্রীকে বস্তাবন্দি করে নদীতে ফেলার চেষ্টা স্বামীর         সিলেটে করোনায় আরো ৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৪০         বিশ্বনাথে খেলনার ‘বেহালা’য় হাছু মিয়ার জীবন সংগ্রাম         সেই নারীর লন্ডন যাওয়ার ব্যবস্থা করল বিমান         সাবেক এমপি মিলন-এর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল        

‘হিজড়া জনগোষ্ঠীর অধিকার নিশ্চিতের দায়িত্ব রাস্ট্রের’

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: রাষ্ট্র নাগরিকের অধিকার নিশ্চিত না করলে অন্য কোনো ভাবে তা পূরণ করা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন, মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও আইন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডক্টর মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, রাষ্ট্র যখন নাগরিকের অধিকারের সুষ্ঠু বণ্টন করতে না পারে, তখনই সামাজিক বৈষম্য প্রকট হয়ে ওঠে।

রবিবার (৩০ মে) বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি (বন্ধু) আয়োজিত ‘হিউম্যান রাইটস্ ডিফেন্ডার অ্যাওয়াড-২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এদিন সকালে অনলাইনে ‘ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া ভীতি-বৈষম্য দূরীকরণ’ আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষ্যে এই পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিগত পাঁচ বছরে সারা দেশে লিঙ্গ বৈচিত্র্যময় ও হিজড়া জনগোষ্ঠীর অধিকার রক্ষা, জীবনমান উন্নয়ন ও স্বাস্থ্যসেবায় উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন এমন ১২ জন ব্যক্তিকে ‘হিউম্যান রাইটস্ ডিফেন্ডার অ্যাওয়াড-২০২১’ প্রদান করা হয়।

ডক্টর মিজানুর রহমান আরো বলেন, হিজড়ারা যখন ঢাকা মেডিকেলে দল বেধে করোনা রোগীদের সেবা করে তখন সমস্যা হচ্ছে না, কিন্তু পরিবারের সঙ্গে থাকতে চাইলেই সমস্যা তৈরি হয় যা খুবই দুঃখজনক। তাদের অধিকার হরণ বা কোনো রকম বৈষম্য দন্ডনীয় অপরাধ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অতিথির বক্তব্যে সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দ্রা বার্গ ভন লিন্ডা বলেন, কোভিডের নেতিবাচক প্রভাবে মানবাধিকার লংঘন ও বৈষম্য অনেক বেড়ে গেছে, যার সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী লিঙ্গ বৈচিত্র্যময় ও হিজড়া জনগোষ্ঠী। সবার মানবিক আচরণ এই অবস্থার উন্নতি করতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনের ফাস্ট সেক্রেটারি সাচ্চা ব্লুম্যান, কানাডিয়ান হাই কমিশনের পলিটিক্যাল কাউন্সিলর রোজালি লাপ্ল্যান্তে, বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির চেয়ারপারসন এবং নির্বাহী পরিচালকসহ আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার প্রতিনিধিগণ।

 

 

0Shares





Related News

Comments are Closed