Main Menu

মাদরাসা কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে ‘অপপ্রচার’, ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

বিশেষ সংবাদদাতা: যুক্তরাজ্য প্রবাসী, কমিউনিটি নেতা, সমাজসেবী ও স্থানীয় বিশিষ্টজনের কয়েকজনের বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করে জগন্নাথপুর থানায় অনলাইনে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের এবং এর ভিত্তিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়ে সম্মানহানির অভিযোগে ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গত ৩ জানুয়ারি ঢাকা যুগ্ম জেলা জজ (১ম) আদালতে মামলাটি দায়ের করেন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ‘হলিয়ারপাড়া মাদরাসা’র প্রিন্সিপাল মাওলানা মইনুল ইসলাম পারভেজ।

মামলার আসামিরা হলেন- জগন্নাথপুরের হলিয়ারপাড়া গ্রামের জহির উল্লাহ’র ছেলে যুক্তরাজ্য প্রবাসী নুর মিয়া (৬৫), হলিয়ারপাড়া পূর্বপারের ওয়ারিছ আলীর ছেলে প্রবাসী তেরাব আলী (৬৫) ও প্রবাসী আলতাব আলী (৬০)। মামলা নং-৬/২০২৩।

দায়েরের পর মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)-কে দিয়েছেন আদালত।

এছাড়াও গত ৫ জানুয়ারি ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজেস্ট্রেট আদালতে এই তিনজনকে আসামি করে ফৌজদারি অপর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-১৫/২০২৩।

মামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রবাসীদের অর্থায়নে জগন্নাথপুর উপজেলার হলিয়ারপাড়ায় কয়েক বছর আগে একটি মাদরাসা স্থাপন করা হয়। মাদরাসাটি পরিচালনার জন্য যুক্তরাজ্যে প্রবাসীরা সেখানে একটি সাপোর্ট কমিটি গঠন করেন। এ কমিটিতে রয়েছেন হলিয়ারপাড়া ও আশপাশ এলাকার যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা। মাদরাসাকে সহায়তার লক্ষ্যে সেই কমিটির তিনজনের নামে যুক্তরাজ্যে একটি ব্যাংক হিসাবও খোলা হয়। তবে আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতার বৃহত্তর স্বার্থে মাদরাসার নামে পৃথক একটি ব্যাংক হিসাব খুলে এতে সমুদয় অর্থ স্থানান্তর করা হয়।

এদিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ করা বা খোঁজ-খবর না নিয়ে বিষয়টি নিয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে জলঘোলা করেন যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত সেই কমিটির নুর মিয়া, তেরাব আলী ও আলতাব আলী (৬০) এবং তাদের সহযোগিরা। একপর্যায়ে গত বছরের ১৯ অক্টোবর এ তিনজন ‘হলিয়ারপাড়া মাদরাসা’র যুক্তরাজ্য কমিটির শীর্ষ তিন নেতা আব্দুর রহিম, আলতাব আলী ওরফে আলফু মিয়া ও আব্দুল আজিজ এবং মাদরাসা সংশ্লিষ্ট স্থানীয় গণ্যমান্য আরও ছয়জনের নামে জগন্নাথপুর থানায় অনলাইনের মাধ্যমে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট তথ্যের ভিত্তিতে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে তারা ‘হলিয়ারপাড়া মাদরাসা’র আর্থিক ব্যবস্থাপনা এবং অর্থ আত্মসাতের কথা উল্লেখ করেন। এছাড়াও তারা এই তিন প্রবাসী এবং স্থানীয় কমিটির ছয়জনের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভিত্তিহীন, মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক-হোয়াটসআপে ছড়িয়ে দেন।

বিষয়টি আব্দুর রহিমসহ অন্যদের দৃষ্টিগোচর হলে তারা মাদরাসা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় পরিচালনা কমিটিকে অবগত করে এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের উদ্যোগ নেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩ জানুয়ারি মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মইনুল ইসলাম পারভেজ বাদী হয়ে ঢাকা যুগ্ম জেলা জজ (১ম) আদালতে এই ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন আদালত।

এছাড়াও ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি ফৌজদারি মামলাও দায়ের করা হয়।

এ বিষয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার ফাতেমা এস চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন- মামলাটি নিয়ে পিবিআই ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে। এ পর্যায়ে আদালত পিবিআই’র রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন- অনলাইনের মাধ্যমে এ বিষয়ে একটি অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছিলো। তবে আনীত অভিযোগের বিষয়টি আমলে নেওয়া হয়নি বিধায় পুলিশ কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাছাড়া পরবর্তীতে অভিযোগকারীরাও এ ব্যাপারে আমাদের সঙ্গে আর যোগাযোগ করেননি।

Share





Related News

Comments are Closed