Main Menu
শিরোনাম
শাবির ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন, ভিসির পদত্যাগ দাবি         মধ্যরাতেও ভিসির পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল শাবি         শাবিপ্রবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা         তাহিরপুরে অবৈধ কোয়ারীর মাটি চাপায় শ্রমিককের মৃত্যু         শাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থি-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত ৩০         বিয়ানীবাজারে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় ১জনের মৃত্যু         ‘সম্পত্তির লোভে ছেলে-পুত্রবধূর ষড়যন্ত্রে দিশেহারা সৌদিফেরত জমসেদ আলী’         কানাইঘাটে সাংবাদিকের হাত-পায়ে কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা         শাবির উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থিরা         সিলেটে একদিনে আরো ১৪৮ জনের করোনা শনাক্ত         ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা শাবি শিক্ষার্থীদের         বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণ’, গ্রেপ্তার ১        

জাবির সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন হলেন অধ্যাপক আকবর হুসাইন

জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডীন হিসেবে নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আকবার হোসেনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডীন অধ্যাপক রাশেদা আখতারের অনুরোধের প্রেক্ষিতে তাকে উক্ত পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাক্ট ১৯৭৩ এর প্রথম সংবিধির ৮ (২) ধারা অনুযায়ী নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আকবার হোসেনকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাময়িকভাবে সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডীন হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হলো। তিনি প্রচলিত নিয়মে সুবিধাদি ভোগ করবেন।

অধ্যাপক আকবার হোসেন বলেন, চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে চাই। শিক্ষক-শিক্ষার্থী সকলের স্বার্থে কাজ করতে চাই। গতবছরের ১০ আগস্ট অধ্যাপক রাশেদা আখতারকে কোষাধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এরপর থেকে দুই পদেই দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন তিনি।

অধ্যাপক আকবার হোসেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে ১৯৯৩ সালে ওই বিভাগেই প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। এরপর ২০০১ সালে জাপানের ইউনিভার্সিটি অব সুকুবা থেকে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি ২০০৭ সালে পদোন্নতি পেয়ে নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক হন।

0Shares





Related News

Comments are Closed