Main Menu
শিরোনাম
সিলেটের তিন উপজেলায় নেই সিএনজি ফিলিং ষ্টেশন         ডা. সিকান্দার-সবতেরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্বোধন         বাউল কামাল পাশার ১২০তম জন্মবার্ষিকী পালিত         সিলেটে বাস-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১জন নিহত         বগির জয়েন্ট খুলে হঠাৎ দুই ভাগ চলন্ত ট্রেন         বেফাঁস মন্তব্যে বহিষ্কৃত গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র রাবেল         গোয়াইনঘাটে ২২৫ বোতল বিদেশী মদসহ গ্রেপ্তার ৩         গোলাপগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে পল্লী বিদ্যুৎতের লাইনম্যানের মৃত্যু         ছাতকে রুহুল আমিন ফাউন্ডেশনের ৫ম বর্ষপূর্তি পালিত         নৌপথে ভারতে প্রবেশের দায়ে পাথর বোঝাই ট্রলার জব্দ         জৈন্তাপুরে স্কুলছাত্রের উপর চোরাকারবারীদের হামলা         ডা. সিকান্দার-সবতেরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু সোমবার        

আজ রাত থেকেই বন্ধ হচ্ছে ট্রেন চলাচল

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: যেসব ট্রেন যাত্রা করলে গন্তব্যে পৌঁছাতে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ৬টার বেজে যাবে, রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের সেই সব ট্রেনের ট্রিপ বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) রাত থেকেই বন্ধ থাকবে।

রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) জাহাঙ্গীর আলম সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যেসব ট্রেন যাত্রা করলে ঢাকায় পৌঁছাতে শুক্রবার ভোর ৬টার বেশি বেজে যাবে, কিংবা ঢাকা থেকে ছাড়লে গন্তব্যে পৌঁছাতে শুক্রবার ভোর ৬টার বেশি সময় লেগে যায় সেসব ট্রেন বৃহস্পতিবার রাত থেকেই বন্ধ থাকবে।

পশ্চিমাঞ্চল থেকে আজ রাতে কোনো ট্রেনই ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করবে না জানিয়ে তিনি আরও বলেন, সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধের জন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঈদকে উপলক্ষে এক সপ্তাহের জন্য বিধিনিষেধ (লকডাউন) শিথিলের পর শুক্রবার (২৩ জুলাই) ভোর ৬টা থেকে আবারও সারা দেশে দুই সপ্তাহের জন্য কঠোর বিধি-নিষেধ শুরু হতে যাচ্ছে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বিধিনিষেধ শিথিল হবে না। গতবারের চেয়েও এবার কঠোর থাকবে প্রশাসন। বিধিনিষেধ নিশ্চিত করতে পুলিশ, বিজিবি ও সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে।

এবারে বিধি-নিষেধে গার্মেন্টস-কলকারখানা সবই বন্ধ থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, এটা এ যাবতকালের সর্বাত্মক কঠোর বিধিনিষেধ হতে যাচ্ছে। এ সময়ে মানুষের বাইরে আসার প্রয়োজনই হবে না। কারণ অফিসে যাওয়ার বিষয় নেই। যারা গ্রামে গেছেন, তারা জানেন যে অফিস বন্ধ। তাদের ৫ তারিখের পরে আসতে হবে।

ফরহাদ হোসেন বলেন, আমরা যদি এটা ১৪ দিন সফলভাবে করতে পারি সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পারব। না হলে এটা বাড়তে থাকবে। হাসপাতালে যে চাপ তা ম্যানেজ করতে অসুবিধা হবে। তাই সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে। এই ১৪ দিন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এর আগে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে গত ১ জুলাই থেকে দেশব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়। তবে ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত ওই বিধিনিষেধ শিথিল একটি প্রকটি প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ওই একই প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, ঈদের একদিন পর অর্থাৎ ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট দিনগত রাত ১২টা পর্যন্ত দুই সপ্তাহের জন্য আবারও কঠোর বিধিনিষেধের আওতায় থাকবে দেশ।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed