Main Menu

গীতিকার নৃর জাহানের দেশ প্রেম ও গানের ভৃবন

আমির হোসেন সাগর : আমাদের প্রিয় জন্মভূমি সিলেট, ৩৬০ আউলিয়া স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহ্য ঘেরা মাটি, সোনার চেয়ে খাটি, এই সিলেট জেলা। এ মাটিতে জন্ম নিয়েছেন কত গীতিকবি। তেমনি আরেক মমতা ময়ী নারী যার উষ্ণতা ছড়িয়ে পড়েছে সিলেট জেলাসহ দেশের আনাচে-কানাচে। সেই গুনবতী সাহসী বীরমুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও স্বাধীনতা উত্তর বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার নূরজাহান বেগম।
তিনি ১৯৪৩ইং সালের ১৭ই মার্চ সিলেট জেলার বিশ্বনাথ উপজেলার ধীতপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা ও মাতৃকুল হিন্দু ধর্মাবলম্ভী ছিলেন। কিন্তু নূরজাহান বেগম ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর, তার পিতাও ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। ছোটবেলা খেকেই ইসলাম শিক্ষার দিকে টান ছিল তার, এরপর ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর থেকে বিভিন্ন আলেম উলামাদের কাছে সহি নামাজ ও কোরআন শিক্ষা গ্রহন করেন নূরজাহান ।
১৯৬০ সালে বিয়ে করেন, সংসার জীবনের পাশাপাশি মসজিদ মাদ্রাসা মোকাম মঞ্জিলসহ অসহায় গরিব মানুষদের সাহায্য করে আসছেন। নিজ গ্রামে বাবার কবরের পাশে একটি মাদ্রাসা নির্মান করছেন নূরজাহান বেগম, যার কাজ প্রায় শেষের দিকে।
তিনি দীর্ঘ প্রায় ৩৫ বছর লন্ডনে জীবন যাপন করছেন। এরই সাথে সাহিত্য ও সংগীত চর্চা করেন। প্রবাসে থেকেও দেশের মাটি ও মাতৃভূমিকে ভালোবেসে প্রায় ৩৫০টির অধিক গান লিখেছেন। ইতোমধ্যে তার ২টি গানের বই বাজারজাত হয়েছে। প্রথম বই ‘ঝরামন’ নামে বাজারজাত হয় ২০১০ সালের এপ্রিলে। ২০১টি গান রয়েছে বইয়ের মধ্যে এবং দ্বিতীয় বই ‘বড় কষ্ট’ নামে ১৫৩টি গান নিয়ে বের হয় ১ জানুয়ারী ২০১৪ সালে। তার তৃতীয় গানের বই অন্তর এর কাজ চলছে, চলতি বছরের ২৮ জুন তারিখে বাজারজাত হবে ১০১টি গান নিয়ে । শুধু তাই নয় নূরজাহান বেগম ইতোমধ্যে ইসলামী একটি বই বের করেছেন ‘সুরা বাকারা ও সুরা নহল এর বাংলা ব্যাংখ্যা করেছেন বইটিতে, বইগুলো বিনামুল্য মানুষের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। সংসার জীবনে ২ ছেলে ও দুই মেয়ের জননী। বিলেতে স্থায়িভাবে বসবাস করলে মাতৃভৃমি ও মাটির টানে বার বার দেশে চলে আসেন। প্রবাসে থেকেও দেশের সাংস্কৃতিকে ভুলতে পারেননি, তার সহযোগিতায় অনেকেই আজ সংগিতের জগতে ভালো অবস্থানে পৌছেছেন। মূলত মরমী ধারণ গান লিখেন, তিনি সিলেট বিভাগীয় গীতিকার সংসদের আজীবন সদস্য ও উপদেষ্টা এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের নিয়মিত গীতিকার হিসেবে কাজ করছেন। আধ্যাতিক এই রাজধানী সিলেট সহ দেশের বাউল ও গান ভক্তদের সাথে জীবনের শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত মিশে থাকতে চান এই মমতা ময়ী নারী নৃরজাহান বেগম।

0Shares





Related News

Comments are Closed