Main Menu

জাবির সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শ্রেষ্ঠ গবেষক ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ

জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত শিক্ষকদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা অধিক মানসম্পন্ন গবেষণা প্রকাশনার জন্য ভূগোল ও পরিবশ বিভাগের অধ্যাপক ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ ‘আবু জাফর শামসুদ্দীন ও আয়েশা আখতার খাতুন মেমোরিয়াল ট্রাস্ট’ সম্মাননা ২০২৩ পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন।

গত রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারী) সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক বশির আহমেদ কর্তৃক সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবছর ১লা জানুয়ারি থেকে ৩১শে ডিসেম্বর তারিখ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে সমাজবিজ্ঞান অনুষদভূক্ত ৬টি বিভাগের মোট ১২৫জন শিক্ষকের প্রোফাইল বিবেচনা করে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

ট্রাস্টের সভাপতি অধ্যাপক দারা শামসুদ্দীন গত ৩১শে জানুয়ারি প্রফেসর ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ-কে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের অনুরোধ জানিয়ে পত্রের মাধ্যমে সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ-এর ডিন অধ্যাপক ড. বশির আহমেদ-কে অনুরোধ করেছেন। সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষক লাউঞ্জে উক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করে অধ্যাপক ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ কে পুরস্কৃত করবেন বলে উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন।

শ্রেষ্ঠ গবেষক হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার অনুভূতি সম্পর্কে জানতে চাইলে অধ্যাপক ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ বলেন, ‘কাজের স্বীকৃতি পেলে সবসময়ই ভালো লাগে। আমি সর্বদাই মানসম্পন্ন গবেষণা করতে আগ্রহী। গবেষণার মাধ্যমে আমি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগকে দেশ ও দেশের বাইরে পরিচয় করাতে চাই। এই পুরষ্কার আমাকে সেই লক্ষ্যে দৃঢ়ভাবে কাজ করতে উৎসাহ ও উদ্দীপনা জোগাবে।’

অধ্যাপক ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ অন্তর্জাতিক ও জাতীয় পর্যায়ে ভূগোল ও পরিবেশ বিষয়ক গবেষণায় দীর্ঘসময় ধরে সুনামের সাথে কাজ করছেন। তিনি ইতিমধ্যে ১৫০ এর অধিক মানসম্পন্ন গবেষণা পত্র এবং একাধিক এটলাস প্রকাশ করেছেন। তিনি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক (উচ্চ ইম্পাক্টফ্যাক্টর) জার্নালে ৪৬ টির বেশি গবেষণা পত্র এবং ১৭টি আন্তর্জাতিক কনফারেন্স এ গবেষণাপত্র উপস্থাপন করেছেন। তিনি বাংলাপিডিয়া (বাংলাদেশ জাতীয় জ্ঞানকোষ)(বাংলা ১৪ খন্ড এবং ইংরেজি ১৪ খন্ড) এর কার্টোগ্রাফার হিসেবে এবং ‘National Atlas of Bangladesh’ এ প্রধান কার্টোগ্রাফার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও তিনি পরিবেশ অধিদপ্তরের অধীনে ৮ খন্ডের এটলাস প্রকাশ করেছেন।

ড. খন্দকার হাসান মাহমুদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়-এর ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ থেকে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর উভয় ক্ষেত্রে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জণ করেন। এরপর তিনি কানাডার ম্যানিটোবা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিশটিকশনসহ ২ বছর মেয়াদী মাস্টার্স অব এনভায়রনমেন্ট ডিগ্রি লাভ করেন। পরবর্তিতে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ থেকে এনভায়রনমেন্টাল ভালনারেবিলিটি বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি ভালনারেবিলিটি ও রেসিলিয়েন্স, জিওস্ট্যাটইসটিকস, জিআইএস ও রিমোট সেন্সিং বিষয়ে গবেষণা করছেন।

Share





Related News

Comments are Closed