Main Menu
শিরোনাম
হবিগঞ্জ সদরে ৪ ইউপিতে আ.লীগ, বাকি চারে অন্যরা         শান্তিগঞ্জে ২টিতে নৌকা, বাকি ৬টিতে অন্যরা জয়ী         সুনামগঞ্জে সবক’টি ইউনিয়নে নৌকার ভরাডুবি         সিলেটে ৯ ইউপিতে নৌকার জয়, বিদ্রোহীসহ অন্যরা ৭         সিকৃবিতে প্যারাসাইট রিসোর্স ব্যাংক উদ্বোধন         ছাতকে ক্রাশিং চুনাপাথর বিক্রি বন্ধে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ         কমলগঞ্জে বসতঘর থেকে তরুনীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার         মাধবপুরে বাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহির মৃত্যু         বিশ্বনাথে আমন ধানের বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি         সিলেটের ১৬ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ চলছে         জৈন্তাপুরে ফ্রি সুন্নতে খতনা ক্যাম্প অনুষ্টিত         সুখী ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে কাজ করছে ক্যাপ ফাউন্ডেশন        

শ্রীগোবিন্দপুর চা বাগান বন্ধ, বকেয়া মজুরী দাবি

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: গত ১০দিন ধরে বন্ধ থাকা মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের ব্যক্তি মালিকানাধীন শ্রীগোবিন্দপুর চা বাগানের শ্রমিকদের আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজার পূর্বে সমুহ বকেয়া মজুরী ও বোনাস প্রদানের দাবি জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু ধলই ভ্যালী কার্যকরী কমিটির উদ্যোগে কমলগঞ্জ উপজেলা সদরস্থ সংগঠনের কার্যালয়ে ২৩টি চা বাগানের শ্রমিক প্রতিনিধিদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সভা থেকে এ দাবী জানানো হয়।

মনু ধলই ভ্যালী সভাপতি ধনা বাউরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকার সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাহী উপদেষ্টা রামভজন কৈরী, নারীনেত্রী গায়ত্রী রাজভর, শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি মিলন নায়েক, সম্পাদক বিমল পাইনকা, শমশেরনগর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি শ্রীকান্ত কানু, সম্পাদক নৃপেন বাউরী, আলীনগর চা বাগান সভাপতি গনেশ পাত্র, মাধবপুর চা বাগান সভাপতি সাধুরাম রবিদাস, মদনমোহনপুর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি উমা শংকর গোয়ালা, পাত্রখোলা চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি দেবাশীষ চক্রবর্তী শিপন প্রমুখ। সভা শেষে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

বক্তারা বলেন, মহসীন টি কোম্পানির শ্রীগোবিন্দপুর চা-বাগানের শ্রমিক শ্রীজনম ভর ব্যবস্থাপক প্রশান্ত সরকারের কাছে মৌখিকভাবে অনুমতি নিয়ে ধারদেনা করে দুই লাখ টাকা ব্যয়ে ছোট পাকা ঘরটি নির্মাণ করেছেন। কিন্তু তাঁকে না জানিয়ে বিনা নোটিশে গত ২৫ সেপ্টেম্বর তাঁর ঘরটি ভেঙে দেওয়া হলো। বেআইনী ষড়যন্ত্র ও উস্কানীমুলকভাবে শ্রমিকের বসতঘর ভেঙ্গে দেয়া মোটেই কাম্য নয়। এতে শ্রমিকদের ক্ষুদ্ধ করে তুলে হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে প্রতিদিন মানববন্ধন ও নানা প্রতিবাদ কর্মসুচী পালিত হয়। কোনপ্রকার পূর্বঘোষনা ছাড়াই সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে থেকে শ্রীগোবিন্দপুর চা বাগান বন্ধ ঘোষনা করে দেন বাগান কর্তৃপক্ষ। অবিলম্বে বকেয়া মজুরী ও বোনাস প্রদান করা না হলে আগামীতে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তাঁরা।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাহী উপদেষ্টা ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী বলেন, বেআইনীভাবে শ্রমিকের বসতঘর ভেঙ্গে বাগান কর্তৃপক্ষ শ্রীগোবিন্দপুর চা বাগান লকআউট ঘোষনা করেন। দুর্গাপূজার পূর্বে বকেয়া মজুরী ও বোনাস পরিশোধমুলকভাবে লকআউট প্রত্যাহার করতে হবে।

 

0Shares





Related News

Comments are Closed