Main Menu
শিরোনাম
‘অসমাপ্ত উন্নয়ন সমাপ্ত করতে নৌকা মার্কায় ভোট দিন’         সিলেট-২ আসনে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন মুহিবুর রহমান         সিকৃবিতে শোকর‌্যালি ও আলোক প্রজ্জ্বলন         ধানের শীষে ভোট দিয়ে দুঃশাসনের জবাব দিন: শফি চৌধুরী         বিশ্বনাথে বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে প্রশাসনের শ্রদ্ধাঞ্জলি         সিলেট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আব্দুল হান্নানের ইন্তেকাল         দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রশাসনের শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন         ইলিয়াসপত্নী লুনার প্রার্থীতা স্থগিতে এলাকাবাসীর প্রতিক্রিয়া         ৯৯৯-এ কল; মধ্যরাতে অসুস্থ দুই নারীর প্রতি পুলিশের মানবিকতা!         ‘মানুষ লুটপাটকারীদের মিথ্যা আশ্বাসে আর বিভ্রান্ত হবেনা’         বিশ্বনাথে হঠাৎ থেমে গেল নির্বাচনী আমেজ!         সুনামগঞ্জে পরিযায়ী পাখি বিক্রেতাকে ৪ মাসের দন্ড        

সুনামগঞ্জে বাউল কামাল পাশার জন্মদিন পালিত

প্রকাশিত: ১২:৪৪:২২,অপরাহ্ন ০৭ ডিসেম্বর ২০১৫ | সংবাদটি ৫০২ বার পঠিত

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা: আলোচনা ও বাউল গান পরিবেশনসহ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের সমাবেশের মধ্যে দিয়ে ভাটির জনপদের প্রয়াত চারন কবি,গানের সম্রাট বাউল কামাল পাশার (কামাল উদ্দিন) জন্মদিন পালিত হয়েছে।
রবিবার সকাল ১১টায় জেলা সদরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে সুনামগঞ্জ শত্রুমুক্ত দিবস ও কামাল পাশার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ৬টি সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে এ কর্মসুচি পালন করা হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগ, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ, কালনী বেতার শ্রোতা ক্লাব ও বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদ এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত আসনের এমপি এডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানা রব্বানী। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আলী আমজাদ। মুক্তিযোদ্ধা মইন উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগের সাধারন সম্পাদক কাজী জালাল উদ্দিন জাহান,আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদের আহবায়ক সাংবাদিক বাউল আল-হেলাল, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক নিয়ামুল বাশার পাপ্পু, দেওয়ান জিসান রাজা চৌধুরী, সদস্য-সচিব কেবি মুর্শেদ জাহাঙ্গীর, মোঃ আজিম উদ্দিন, সদর উপজেলা শাখার আহবায়ক কাজী জসিম কামাল, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সদর উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃ মইন উদ্দিন, সেক্রেটারী শফিকুল ইসলাম নেছার, জাহাঙ্গীর আলম.সাদেক মিয়া, নুরুল আমিন, সিরাজ আলী, আফাজ উদ্দিন মেম্বার, খোকন মিয়া, সোয়েব আহমদ ও সমুজ আলীসহ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা।
সমাবেশ চলাকালে কামালগীতি পরিবেশন করেন “বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদ সুনামগঞ্জ” সংগঠনের আহবায়ক সাংবাদিক বাউল আল-হেলাল, কালনী বেতার শ্রোতা ক্লাবের সাধারন সম্পাদক নূর আহমদ তারা মিয়া মাস্টার, বাউল ছালিক এলাহি চৌধুরী, বাউল মোশাহিদ ভান্ডারী, বাউল আমজাদ পাশা, বাউল কিবরিয়া সরকার, বাউল সোহেল সরকার, বাউল স্বপ্না বেগম, বাউল বুরহান উদ্দিন, বাউল ফারুক মিয়া, বাউল যোবায়ের বখত সেবুল, বাউল ছারোয়ার আলম তালুকদার, কবিরাজ বাউল আলাউদ্দিন মিয়া ও তাজুদ পাশাসহ স্থানীয় শিল্পীবৃন্দ।
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এডভোকেট শাহানা রব্বানী এমপি বলেন, জঙ্গীবাদমুক্ত বাংলাদেশ কায়েম করতে হলে মরমী কবিদের মূল্যায়ন করতে হবে। কারণ প্রকৃত মরমী কবিরাই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য সাধনা করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মরমী কবিদের সাধনা এক ও অভিন্ন। আমরা ব্যক্তি কামাল পাশা নয় গুনী মরমী সাধক বাউল কামাল পাশাকে তার গানের কথা ও সুরের মাঝে বাঁচিয়ে রাখতে চাই। আমাদের বিশ্বাস কামাল পাশার মতো সাধকরা তাদের সাধনার মধ্যেই বেঁচে থাকবেন। সরকার পর্যায়ক্রমে কামাল পাশাসহ দেশের সকল গুনী সাধকদেরকেই স্বীকৃতি প্রদান করবে।
উল্লেখ্য রাজধানী ঢাকা, বিভাগীয় শহর সিলেট, সুনামগঞ্জ জেলা সদর ও মরহুম বাউলের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামে পৃথক ভাবে কামাল পাশার জন্মদিন পালিত হয়েছে।
ভাটি বাংলার মরমী ভূবনের কালজয়ী এই মরমী কবি ১৯০১ ইং সনের ৬ ডিসেম্বর সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহন এবং ১৯৮৫ ইং সনের ৬ মে মোতাবেক ১৩৯২ বাংলার ২০ বৈশাখ মৃত্যুবরন করেন।
প্রয়াত এই সঙ্গীত সাধকের রচিত “দ্বীন দুনিয়ার মালিক খোদা এত কষ্ট সয়না তোমার দ্বীলকি দয়া হয়না” গানটি ভারতের বাংলা চলচ্চিত্রকে সমৃদ্ধ করেছে। ভাটিয়ালি গানের শিল্পী আব্দুল আলিম,বাউল কামাল পাশা রচিত “প্রেমের মরা জলে ডুবেনা/ওপ্রেম করতে দুদিন ভাঙ্গতে একদিন এমন প্রেম আর কইরোনাগো দরদী” সহ একাধিক গান গেয়ে সুনাম অর্জন করেছেন। শুধু গান রচনাই নয় ঐতিহাসিক নানকার আন্দোলন, ৪৭ এর গণভোট আন্দোলন, ৫২ এর ভাষা আন্দোলন, ৫৪‘র যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন ও ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহনের পাশাপাশি এই শিল্পী স্বাধীকার স্বাধীনতা ও স্বায়ত্বশাসনের পক্ষে গণসঙ্গীত পরিবেশন করেন। বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদের সংগ্রহে এই প্রয়াত লোককবির প্রায় ১০০০ গান রয়েছে। বাউল শাহ আব্দুল করিম ও দূর্বীণ শাহের অগ্রজ এই লোকশিল্পী কে মরণোত্তর একুশে পদকে ভূষিত করার জন্য দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্তৃক জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে ৫ বার প্রস্তাবনা প্রেরন করা হলেও আজও এই শিল্পী পাননি রাষ্ট্রীয় কোন স্বীকৃতি।






Related News

Comments are Closed