Main Menu
শিরোনাম
বিশ্বনাথে ‘ধানের শীষ’র নির্বাচনী কার্যালয় উদ্বোধন         জৈন্তাপুরে শুকসারী ঘাট নির্মাণে গচ্ছা গেল ২০ লক্ষ টাকা         জাফলংয়ে ব্যবসায়ীকে হয়রানীর অভিযোগ         ধানের শীষ প্রতীক পেলেন ড. রেজা কিবরিয়া         শ্রীমঙ্গলে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস পালিত         গোলাপগঞ্জে দুই ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার         সিলেটে একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতীক সিংহ         সিলেটের ৬টি আসনের প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ         গোয়াইনঘাটে গরুচোরদের হামলায় নিহত ১         হবিগঞ্জে ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার         পীরেরবাজারে ট্রাক চাপায় স্কুলছাত্র নিহত         গোলাপগঞ্জে যুবদল সভাপতি গ্রেফতার        

জাবিতে স্নাতকোত্তরের বিভাগ উন্নয়ন ফি বাতিল

প্রকাশিত: ১২:১৯:৩১,অপরাহ্ন ০৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | সংবাদটি ১৩ বার পঠিত

আসিফ, জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বিভাগ উন্নয়ন ফি’ বাতিলের দাবিতে ‘ভর্তি কার্যক্রম অবরোধ’ কর্মসূচী পালন কালে স্নাতকোত্তরের (মাস্টার্সের) ‘বিভাগ উন্নয়ন ফি’ বাতিল করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল সোমবার প্রগতিশীল ছাত্র জোটের নতুন প্রশাসনিক ভবন অবরোধের প্রেক্ষিতে এমন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “এখন থেকে স্নাতকোত্তর ভর্তির সময় কোন বিভাগ উন্নয়ন ফি নেওয়া যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, শিক্ষক সমিতি ও সংশ্লিষ্ট ছাত্র সংগঠন যৌথভাবে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের বিভাগ উন্নয়ন ফি বাবদ অর্থ প্রদানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে (ইউজিসি) অনুরোধ করবে।”

উক্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে বেলা ৩টার দিকে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতা কর্মীরা তাদের অবরোধ কর্মসূচী তুলে নেয়। পরে ছাত্রজোটের নেতা মোহাম্মদ দিদার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, “অনার্স এবং মাস্টার্সে আদায় করা অবৈধ বিভাগ উন্নয়ন ফি বাতিলের দাবীতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে প্রগতিশীল ছাত্র জোট। তার ধারাবাহিকতায় আজকের অবরোধের প্রেক্ষিতে মাস্টার্সের বিভাগ উন্নয়ন ফি বাতিল করেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এবং অনার্সে প্রয়োজনীয় অর্থ পরবর্তী বছর ইউজিসির কাছ থেকে আদায় করার সিদ্ধান্ত নেন। যদি ইউজিসি’র কাছ থেকে অর্থ আদায় না করা যায়, তাহলে অন্যকোন সোর্স থেকে প্রয়োজনীয় অর্থের ব্যবস্থা করার কথা জানান প্রশাসন। প্রগতিশীল ছাত্র জোট বিশ্ববিদ্যালয়ের এইরূপ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানায়। একইসাথে ছাত্রজোটের আন্দোলনের সাথে যারা সর্বাত্মক সহযোগীতা করেছেন, প্রায় সাড়ে ৪ হাজার শিক্ষার্থী এই দাবীর পক্ষে স্বাক্ষর দিয়েছেন তাদের সকলকে বিপ্লবী অভিবাদন জানায়।”

এদিকে এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবরোধ কর্মসূচী পালন করে ছাত্রজোটের নেতৃবৃন্দ। যার ফলে প্রশাসনিক ভবনে কোন অফিসার কিংবা কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রবেশ করতে পারেনি।

এই সময় দূরদূরান্ত থেকে আগত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদেরকে প্রশাসনিক ভবনের সামনে নির্বাক দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। অবরোধের ফলে বিকেল ৩টা অবধি তারা ভর্তির কোন কাগজপত্র জমা দিতে পারেনি।






Related News

Comments are Closed