Main Menu
শিরোনাম
সুনামগঞ্জ সফরে ভারতীয় হাই কমিশনার         বিশ্বনাথে মেছো বাঘ আটক         ছাতকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষাথীদের বিদায়ী অনুষ্টান         জৈন্তাপুরে ট্রাক চাপায় শিশু নিহত, অাহত ৫         ছাতকে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু         লাউড় রাজ্যের রাজবাড়িতে প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের উৎখনন         সিলেটে মাজার জিয়ারতে স্পিকার শিরীন শারমিন         সুনামগঞ্জ সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ’র পতাকা বৈঠক         জাফলংয়ে ভারতীয় তীর খেলার বইসহ আটক ২         কমলগঞ্জে চার খাবার হোটেলে জরিমানা         প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদকের মুক্তির দাবিতে সুনামগঞ্জে মানববন্ধন         হবিগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ডাকাতি        

সিলেটে স্মরণীয় অভিষেক চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ৫:১৫:০৪,অপরাহ্ন ০২ নভেম্বর ২০১৮ | সংবাদটি ২০ বার পঠিত

স্পোর্টস ডেস্ক: দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে শনিবার (৩ নভেম্বর) জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে সফলতার পর টেস্টেও সিরিজ জিততে চায় বাংলাদেশ। এদিকে এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে টেস্টে অভিষেক হতে যাচ্ছে সিলেট ভেন্যুর। তাই জয় দিয়ে ম্যাচটি স্মরণীয় করে রাখতে চায় টাইগাররা।

শনিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া ম্যাচের আগেরদিন শুক্রবার (২ নভেম্বর) সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এমনটাই জানালেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

তিনি বলেন, ‘ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়ে ভালো খেলেছে। আমরা তাদের চেয়ে আরো ভালো খেলেছি তাই সিরিজটা আমাদের হয়েছে। আমরা কোন ভাবেই জিম্বাবুয়েকে ছোট করে দেখছি না। আমরা সেরা একাদশ নিয়েই খেলব। কারণ প্রথম ম্যাচটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি যে ফরম্যাটই হোক, প্রথম ম্যাচটি সবসময়েই গুরুত্বপূর্ণ। আর আমরা সবসময় বিশ্বাস করি যে আমাদের শুরুটা যখন ভাল হয় আমরা আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারি।’

টেস্ট অধিনায়ক সাকিবের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, প্রথমত বিষয়টি অনাকাঙ্ক্ষিত। কারণ সাকিব থাকলে অবশ্যই আমাদের দলের জন্য ভালো হতো। সে আমাদের দলের অপরিহার্য একজন খেলোয়াড়ও। আশা করছি ও দ্রুত ফিরে আসবে।

রিয়াদ বলেন, দলের সবাই ভালো মুডে আছে। ওয়ানডে সিরিজ আমরা জিতেছি এবং যে আত্মবিশ্বাস নিয়ে আছি…সেই আত্মবিশ্বাসটা নিয়ে আমরা যাচ্ছি টেস্ট সিরিজে। তারপরও প্রতিপক্ষকে তাদের প্রাপ্য সম্মানটুকু দেওয়া উচিত। তারা যথেষ্ট ভালো দল। টেস্ট ক্রিকেট এমন একটা ফরম্যাট যেখানে প্রতিটি সেশনে চ্যালেঞ্জ আসবে। ওই চ্যালেঞ্জগুলো বুঝার এবং সেই অনুযায়ী খেলাটা গুরুত্বপূর্ণ। ছোট ছোটো অনেক কাজগুলো প্রত্যেকদিন আমাদের করতে হবে।

নিজের অধিনায়কত্ব নিয়ে রিয়াদ বলেন, অধিনায়ক হওয়াটা প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের জন্য ভালো লাগার একটা বিষয়। এটা একজন খেলোয়াড়কে তার দেশকে প্রতিনিধিত্বের সুযোগ তৈরি করে দেয়। পাশাপাশি অধিনায়কত্ব একটা দায়িত্ব। এই দায়িত্বের কথাও মাথায় রাখতে হবে। আমি আমার শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করবো যেন পজিটিভ রেজাল্ট নিয়ে আসতে পারি। এছাড়াও আমি সবসময় প্লেয়ারদের ফ্রিডম দেয়ার পক্ষে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ফ্রিডম দিলেই যে যার জায়গা থেকে পারফর্ম করার সুযোগটা বেশি থাকে। অনেক সময় অধিনায়কত্বটা গাট ফিলিংয়ের উপর নির্ভর করে। কিন্তু অনেক সময় গাট ফিলিংও কাজে নাও লাগতে পারে। আবার সিচুয়েশন অনুযায়ী অধিনায়কত্ব করার ব্যাপারও রয়েছে।

বিশ্বকাপ ও চলমান টেস্ট সিরিজ নিয়ে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে এ টেস্ট অধিনায়ক বলেন, অবশ্যই বিশ্বকাপের কথা কম-বেশি আমরা সবাই জানি। খুব সন্নিকটে বিশ্বকাপ। তারপরও যেহেতু এখন টেস্ট ক্রিকেট আমাদের সামনে.,,শেষ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজে আমরা ভালো করতে পারিনি। এটা আমাদের জন্য দারুণ একটা সুযোগ। আমরা যেন আমাদের হোম কন্ডিশন কাজে লাগিয়ে দুটা টেস্ট ম্যাচ জিততে পারি এটা আমাদের প্রথম টার্গেট। পাশাপাশি পারফরম্যান্স…আমাদের ছোটো ছোটো অনেকগুলো গোল থাকে সেগুলো ঠিকমতো অ্যাচিভ করতে পারলে আপনি টেস্ট ক্রিকেটে ভালো করতে পারবেন। আমরা এখন প্রথম টেস্ট নিয়ে চিন্তা করছি। বিশ্বকাপ…ওটা ডিফারেন্ট ফরম্যাট। যখন আসবে তখনই আমরা বিশ্বকাপ নিয়ে চিন্তা করবো।

নতুন খেলোয়াড়দের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার মনে হয় ওরা যেভাবে পারফরম্যান্স করছে টেস্ট স্কোয়াডে তাদের একটা সুযোগ প্রাপ্য। অপু-মিথুন দুজনই সাম্প্রতিক সময়ে বেশ ভালো ফর্মে আছে। ওই আত্মবিশ্বাসটা যদি টেস্ট ক্রিকেটে নিয়ে আসতে পারে এবং ভালো পারফর্ম করতে পারে।

দলের পরীক্ষা নিরীক্ষা নিয়ে রিয়াদ বলেন, প্রথম ম্যাচে হয়তো আমরা তেমন পরীক্ষা নিরীক্ষা নাও করতে পারি। আমরা সেরা একাদশ নিয়েই খেলব। কারণ প্রথম ম্যাচটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি টুয়েন্টি যে ফরম্যাটই হোক, প্রথম ম্যাচটি সবসময়েই গুরুত্বপূর্ণ। আর আমরা সবসময় বিশ্বাস করি যে আমাদের শুরুটা যখন ভাল হয় আমরা আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারি। তো সেরা একাদশটিই খেলার সুযোগ পাবে এবং আশা করি সবাই সেই সুযোগের অপেক্ষাতেই আছে।

সিলেটের উইকেট প্রসঙ্গে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, আজ সকালে উইকেট দেখেছি। আগামীকাল সকালেও দেখব। কিছুটা ড্রাই আছে এই মুহূর্তে। মাঝে কিছু ঘাস রয়েছে। তবে এই মুহূর্তে আমরা খুব একটা নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছি না। তবে আমরা দুই পেসার, দুই স্পিনার বা তিন স্পিনার ও এক পেসার নিয়েও খেলতে পারি। এখনও নিশ্চিত না, কাল উইকেট দেখে নিশ্চিত হব।

সবশেষে লোকাল বয় খালেদ ও রাহিকে নিয়ে তিনি বলেন, রাহি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বেশ ভাল পারফর্ম করেছে। আমি মনে করি সে সুযোগ পাওয়ার দাবীদার। আর খালেদ বাংলাদেশের জন্য গুড ইয়াং প্রসপেক্ট। তাঁর বলে গতি আছে আর সুইংও করাতে পারে। হি উইল বি অ্যা গুড প্রসপেক্ট। এখন দেখার বিষয় হচ্ছে কে কিভাবে পারফর্ম করছে। দেখা যাক আমরা কেমন কম্বিনেশন সেট করি।






Related News

Comments are Closed