Main Menu
শিরোনাম
ছাতকে অজ্ঞান করে সাংবাদিকের বাসায় চুরি         কমলগঞ্জে কষ্টি পাথরের মূর্তি উদ্ধার         গোলাপগঞ্জে ঘরের ভেতর মাছ চাষ পদ্ধতির উদ্বোধন         শাবির টিলায় শিশু ধর্ষণের চেষ্টা, লম্পট আটক         নবীগঞ্জে ভারতীয় নাসির বিড়িসহ গ্রেফতার ১         শাহ মাদার (র:) মাজারে ওরস ২৬ জানুয়ারী         কুলাউড়ায় অবৈধভাবে পাহাড় কাটায় জরিমানা         সিলেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ছাত্রলীগের হামলা, আহত ৪         জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হবেন যারা         সিলেট সিক্সার্সের খেলা দেখতে মাঠে মুহিত         সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন         প্রতীকের আত্মহত্যা: পরিবারকে দুষলেন শাবি ভিসি        

যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন এসকে সিনহা

প্রকাশিত: ৩:৫৮:০৩,অপরাহ্ন ১৫ অক্টোবর ২০১৮ | সংবাদটি ৬৭ বার পঠিত

প্রবাস ডেস্ক: অবশেষে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে (এসকে সিনহা) রাজনৈতিক আশ্রয় দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তাকে ইচ্ছেমতো যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস এবং কাজের অনুমতিও দিয়েছে সে দেশের সরকার। রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে সিনহার করা একটি আবেদন গত শুক্রবার (১২ অক্টোবর) মঞ্জুর করে দেশটির পররাষ্ট্র দফতর।

একাধিক দায়িত্বশীল কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংবাদমাধ্যম বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, সম্প্রতি সিনহার আবেদনের ওপর একটি শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানিতে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের প্রতিনিধি, কংগ্রেস প্রতিনিধি এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তায় কাজ করা সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে এস কে সিনহার রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদনটি গৃহীত হয়।

এর আগে ওয়াশিংটন প্রেসক্লাবে বহুল আলোচিত ‘এ ব্রোকেন ড্রিম’ বইয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিনহা জানিয়েছিলেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য পররাষ্ট্র দফতরে আবেদন করেছেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘এই দেশে (যুক্তরাষ্ট্র) আমার কোনো পরিচয় (স্ট্যাটাস) নেই। আমি শুধুমাত্র একজন আশ্রয়প্রার্থী। তাই আমি এখানে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার জন্য আবেদন করেছি। তবে এ বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।’

ওই অনুষ্ঠানে সিনহা দাবি করেন, তাকে হাউস অব কমন্স ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন আমন্ত্রণ জানিয়েছে। তবে সিদ্ধান্ত নিতে না পারার কারণে তিনি যাননি।

তিনি বলেন, ‘আমি নিরাপদ বোধ করছি না। আমি ভীত থাকি, ২৪ ঘণ্টা বাসাতেই থাকি। গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা আমার বাসা সব সময় মনিটরিং করে এবং যারা আমার বাসায় যায় তাদের ছবি তোলা হয়।’

সুত্র : ভোরের কাগজ






Related News

Comments are Closed