Main Menu
শিরোনাম
হবিগঞ্জে বাস চাপায় স্কুল ছাত্র নিহত         কুলাউড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্কুলছাত্রের মৃত্যু         শ্রীমঙ্গলে কলা পাতা দিয়ে ঢাকা নারীর লাশ         কোম্পানীগঞ্জে পাথরের গর্তে নেমে শ্রমিক নিহত         শ্রীমঙ্গলে চলতি মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড         বিশ্বনাথে ৬ জুয়াড়ি আটক         শ্রীমঙ্গলে ধরা পড়ল ৮ ভূয়া পিইসি পরীক্ষার্থী         ওসমানীনগরে কিশোরীর আত্মহত্যা         প্রবাসী স্ত্রীকে লাইভে রেখে স্বামীর আত্মহত্যা!         বিশ্বনাথের রামপাশা-বৈরাগীবাজার রাস্তার বেহাল দশা         ফেঞ্চুগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু         বাহুবলে ট্রাকচাপায় স্কুলছাত্র নিহত        

সাইবার হামলার আশঙ্কায় সব ব্যাংকে সতর্কতা জারি

প্রকাশিত: ১২:০০:৪৯,অপরাহ্ন ১৭ আগস্ট ২০১৮ | সংবাদটি ১০২ বার পঠিত

বৈশাখী নিউজ ডেস্ক: যেকোনও সময় সাইবার হামলা হতে পারে। এমন আশঙ্কায় দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংককে সতর্ক থাকতে নির্দেশ জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) সম্ভাব্য এই সাইবার হামলা নিয়ে দেশের সব ব্যাংকের জন্য সতর্কতা জারি করে বার্তা পাঠানো হয়েছে। সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে সতর্কবার্তা পাঠানো হয়।

সতর্কতায় বলা হয়েছে, ‘গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে প্রতিবেশী দেশের বিভিন্ন ব্যাংক থেকে হ্যাকারেরা বড় অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। হ্যাকারেরা সেই দেশের ভেতর ও বাইরে অবস্থান করে পেমেন্ট সিস্টেমে ঢুকে অর্থ হাতিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছে।’

আরও বলা হয়, ‘বাংলাদেশ উদীয়মান অর্থনীতির দেশ। তাই এই দেশেও এমন সাইবার হামলার আশঙ্কা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সব ব্যাংককে এর আগে সাইবার হামলা ঠেকাতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পাঠানো নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করার জন্য বলা হচ্ছে।’

‘সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে নিবিড় তদারকি নিশ্চিত করার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করতে বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে। বিষয়টি সর্বাধিক গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করতে হবে।’

হ্যাকারেরা ভারতের পুনেভিত্তিক কসমস ব্যাংক থেকে গত ১১ থেকে ১৩ আগস্টের মধ্যে ৯৪ কোটিরও বেশি রুপি হাতিয়ে নিয়েছে। ভিসা ও রুপে ক্রেডিট কার্ড ক্লোন করে এই অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। এর মধ্যে ২ কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কা ও ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনে। এরই মধ্যে মাত্র এক কোটি ৪৫ লাখ ডলার ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। তবে ঘটনার প্রায় আড়াই বছর পার হয়ে গেলেও বাকি টাকা এখনো উদ্ধার হয়নি।






Related News

Comments are Closed