Main Menu
শিরোনাম
সম্মেলন সফলে বাউল কল্যাণ সমিতির সভা         দুই বছরেও উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় মিলেনি         বিশ্বনাথে রুমি হত্যাকারীর ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন         ওসমানীনগরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০         কমলগঞ্জে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে তরুণীর মৃত্যু         বিয়ানীবাজারে অটোরিকশার ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত্যু         শাহ্ আরফিনে টাস্কফোর্সের অভিযানে পে-লোডার জব্দ         সিলেটে অগ্নিকান্ডে ৫টি দোকান ও ৩টি ঘর ভস্মিভূত         তামাবিল স্থল বন্দরে প্রশাসনিক ভবনের উদ্বোধন         সিকৃবিতে স্বয়ংক্রিয় কৃষি-আবহাওয়া স্টেশন স্থাপিত         ফেঞ্চুগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু         সুরমা নদীতে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার        

সিলেটের বিছানাকান্দিতে হচ্ছে ইকোপার্ক

প্রকাশিত: ১০:৫৫:৪৭,অপরাহ্ন ০৮ আগস্ট ২০১৮ | সংবাদটি ১৪৫ বার পঠিত

গোয়াইনঘাট সংবাদদাতা: দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র সিলেটের সীমান্তবর্তী গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছনাকান্দিতে ইকোপার্ক স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট বিভাগীয় প্রশাসন। বিছনাকান্দি পর্যটন কেন্দ্রের সৌন্দর্য বৃদ্ধি এবং পরিবেশ ও জীব বৈচিত্র সংরক্ষণের লক্ষে ৩৪.৫৯ একর ভূমিতে ওই ইকোপার্কটি স্থাপন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছন।

বুধবার (৮ আগস্ট) গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিত কুমার পাল স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহযোগীতায় বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা রোপন করেন। প্রস্তাবিত ইকোপার্কটিতে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ১০ হাজার উন্নত মানের গাছের চারা রোপন করা হবে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল। তিনি আরো বলেন, পর্যটনকেন্দ্র বিছনাকান্দির সৌর্ন্দয্য বৃদ্ধি এবং পরিবেশ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষনের লক্ষে ইকোপার্ক স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছেন সিলেট বিভাগীয় প্রশাসন। বিছনাকান্দিতে ভ্রমণে আসা পর্যটকদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার জন্য এ ইকোপার্কটিতে আলাদা উদ্যোগ নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন শিহাব সাংবাদিকদের বলেন, বিছনাকান্দি পর্যটন কেন্দ্রের অদূরেই ইকোপার্ক স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়ায় বিভাগীয় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় এ পার্কটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি জানান। সিলেট বিভাগীয় প্রশাসনের এ উদ্যোগকে বাস্তবায়নের লক্ষে ইতিমধ্যেই ইকোপার্কের জন্য নির্ধারিত স্থানে ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছের চারা রোপন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এখানে বিভিন্ন প্রজাতির ১০ হাজার গাছের চারা রোপন করা হবে।






Related News

Comments are Closed