Main Menu
শিরোনাম
কানাইঘাটে মামুনের লাশ কবর থেকে উত্তোলন         নবীগঞ্জে ট্রাক-অটোরিরিকশা সংঘর্ষে শিক্ষক নিহত         শ্রীমঙ্গলে একটি অজগর সাপ উদ্ধার         বাস বন্ধ করে সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের সমাবেশ, দুর্ভোগে যাত্রীরা         সিলেটে পল্লী বিদ্যুতের মিটার রিডাররা কর্মবিরতিতে         বিশ্বনাথে প্রবাসীর স্ত্রীর চুরির মামলায় বৃদ্ধ গ্রেফতার         কুলাউড়ায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় চা শ্রমিকের মৃত্যু         কনে ছাড়াই বাড়ি ফিরলেন বর         বিশ্বনাথে একই রাতে দুটি বাড়িতে ডাকাতি, আহত ১         সম্মেলন সফলে বাউল কল্যাণ সমিতির সভা         দুই বছরেও উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় মিলেনি         বিশ্বনাথে রুমি হত্যাকারীর ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন        

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত বেড়ে ৩৪৭

প্রকাশিত: ১০:৪৭:৩০,অপরাহ্ন ০৮ আগস্ট ২০১৮ | সংবাদটি ১০৮ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পর্যটনের জন্য আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা ইন্দোনেশিয়ার লমবোক দ্বীপে গত রোববারের (৫ আগস্ট) শক্তিশালী ভূমিকম্পে প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে ৩৪৭ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন ১ হাজার ৪৪৭ জন মানুষ। আর বাস্তুচ্যুত হয়েছেন ১ লাখ ৬৫ হাজারেরও বেশি বাসিন্দা।

এক সপ্তাহ আগে দ্বীপটিকে কাঁপিয়ে দেওয়ার পর গত রোববার (৫ আগস্ট) ফের ভূমিকম্প অনুভূত হয় লমবোকে। মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস জানায়, রিখটার স্কেলে কম্পনটির মাত্রা ছিল ৭। এরপর সুনামি সর্তকতাও জারি করা হয়।

স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বুধবার (৮ আগস্ট) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলেছে, দ্বীপের প্রায় ৮০ শতাংশ ভবনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিছু কিছু ভবন একেবারে ধসেই গেছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার কারণে অনেক এলাকায় ত্রাণ নিয়ে যেতে পারছেন সংশ্লিষ্ট কর্মীরা।

জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার মুখপাত্র সুতোপো পুর্বো নুগ্রহ বলেন, পুরো দ্বীপটি যেন ধ্বংসস্তূপে পণিত হয়েছে। সেজন্য ভূমিকম্পের তিনদিন গড়ালেও এখনো জনমনের ভীতি-শঙ্কা কাটেনি। লমবোকের উত্তরাঞ্চলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি। উদ্ধারকর্মীরা তাঁবু গেড়ে বাস্তুহারাদের মাথা গোঁজার জায়গা করে দিচ্ছেন। দিচ্ছেন স্বাস্থ্য সেবাও।

ভূমিকম্পে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলোতে বৈদ্যুতিক সংযোগ ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থাও বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এখানকার প্রধান অঞ্চল মাতারামের পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ। মেডিকেল স্টাফরা ক্ষতিগ্রস্ত হাসপাতালেই সর্বোচ্চ চিকিৎসা সেবা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। হতাহতের সংখ্যা যেটা জানা গেছে, আরও বাড়তে পারে।

স্থানীয়রা আরও বলছেন, এ ভূমিকম্পটি গত সপ্তাহের ভূমিকম্পের চেয়ে প্রবল।

এর আগে গত ২৯ জুলাই লম্বক দ্বীপে ৬.৪ মাত্রার একটি ভূমিকম্প আঘাত এনেছিল। এতে ১৬ জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি অনেক অবকাঠামোতে ফাটল ধরে দুর্বল করে দিয়েছিল। যে কারণ রবিবারের ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতি বেড়ে যায়।






Related News

Comments are Closed